১৩ মার্চের পর বরিশালে দক্ষিন-পশ্বিমাঞ্চলীয় সকল রুটে বাস চলাচল বন্ধের আল্টিমেটাম

:: ৭১বিডি২৪ডটকম :: ব্যুরো প্রধান ::


বরিশাল


:: বরিশাল :: দীর্ঘদিন যাবৎ বরিশাল থেকে সরাসরি ৬ রুটে বাস চলাচল বন্ধ নিয়ে সংবাদ সম্মেলন করেছে বরিশাল-পটুয়াখালী-বরগুনা মালিক ও শ্রমিক সমন্বয় পরিষদ।

বুধবার (৭ মার্চ) বিকেলে বরিশাল নগরের রূপতলীস্থ সংগঠনের নিজ কার্যালয়ে এই সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়।

ঝালকাঠি জেলা বাস-মিনিবাস মালিক সমিতি ও ঝালকাঠি শ্রমিক ইউনিয়ন কর্তৃক বরিশালের রূপাতলী থেকে পশ্চিমাঞ্চলের ৬টি রুট এবং নলছিটি অঞ্চলের গাড়িসহ বরিশাল-বরগুনা ভায়া চান্দুখালী রুটের গাড়ি চলাচলে বাঁধা প্রদানের প্রতিবাদে এই সংবাদ সম্মেলন করা হয়।

এসময় লিখিত বক্তব্যে বরিশালের রূপাতলী মিনিবাস মালিক সমিতির সাধারন সম্পাদক কাওছার হোসেন শিপন বলেন, ঝালকাঠি জেলা বাস মিনিবাস মালিক সমিতিতে নতুনভাবে কোন গাড়ির প্রয়োজন না থাকা সত্বেও সমিতির নেতারা অর্থ ও স্বার্থ হাসিলের উদ্দেশ্যে ও দলীয় ক্ষমতার দাপটে নতুন মালিক সদস্য তৈরী করে ২৫টি বাস ক্রয় করেছে।

এরমধ্যে ঝালকাঠির বর্তমান পৌর মেয়র লিয়াকত হোসেন তালুকদারের দুই ছেলে মনিরুল ইসলাম তালুকদার ও আমিনুল ইসলাম তালুকদারের নামে ২টি করে বাস এবং ঝালকাঠি জেলা পরিষদের চেয়ারম্যানের স্ত্রী, ঝালকাঠি চেম্বার এন্ড কমার্সের সভাপতি মাহবুব হোসেন, ঝালকাঠি সদর উপজেলা চেয়ারম্যান সুলতান হোসেন খান, জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি মিঠু, জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক খান সাইফুল্লাহ পনিরসহ ১৬ জনের ১৬ টি বাসসহ নতুন আরো অনেকের নামে কোটা দেয়।

সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়, তাদের বাস ক্রয়ের দরকার না থাকা সত্বেও এই বাসগুলো ক্রয় করে বিপাকে পড়েছে ঝালকাঠি মালিক সমিতি। তাই তারা আমাদের উপর চাপ প্রয়োগ করে পটুয়াখালী ও কুয়াকাটাতে তাদের বাস চালাতে চাচ্ছে। সে দাবী আমরা মেনে না নেওয়ায় গুরুত্বপূর্ন ৬টি রুটে সরাসরি বাস চলাচলই বন্ধ করে দিয়েছে ঝালকাঠি মালিক সমিতি ও শ্রমিক ইউনিয়ন।

বিভাগীয় প্রশাসনের পক্ষ থেকে অনেকবার বৈঠকে বসা হলেও তাদের একঘেয়ামীর কারণে কোন সমাধান হয়নি। যে কারণে ভুক্তভোগী হচ্ছে সাধারণ যাত্রীরা।

মঙ্গলবারও বিভাগীয় প্রশাসনের সাথে সমঝোতা বৈঠকের কথা ছিল। তবে সেই বৈঠক শেষ পর্যন্ত হয়নি। তাই গত ১৪ ফেব্রুয়ারি থেকে ঝালকাঠি মালিক সমিতির একঘেয়ামির কারনে বরিশাল থেকে ১০ রুটে সরাসরি বাস চলাচল বন্ধই রয়েছে।

এসময় বরিশাল বিভাগীয় সড়ক পরিবহন মালিক-শ্রমিক সমন্বয় পরিষদের সাধারণ সম্পাদক মোঃ আজিজুর রহমান শাহিন বলেন, যাত্রীসাধারণের ভোগান্তি নিরসনকল্পে ঝালকাঠি ও তথাকথিত মির্জাগঞ্জ সমিতির অবৈধ ও অযৌক্তিক দাবী নিয়ে গাড়ি চলাচলের প্রতিবন্ধকতা তুলে আগামী ১৩ মার্চের মধ্যে সুষ্ঠ গাড়ি চলাচলের জন্য প্রশাসনের উর্ধতন কর্তৃপক্ষের হস্তক্ষেপ কামনা করছি। নয়তো বরিশাল বিভাগীয় দক্ষিন-পশ্বিমাঞ্চলীয় রুটের সকল সমিতি সমূহের গাড়ি চলাচল বন্ধ হয়ে যাবে। এতে সমন্বয় পরিষদের ওপর কোন দায়-দায়িত্ব বর্তাবে না।

Recommended For You

About the Author: HumayrA

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *