হুয়াওয়ের প্রধান কর্মকর্তা মেও ওয়াংঝুর বিরুদ্ধে মামলা


হুয়াওয়ের প্রধান কর্মকর্তা মেও ওয়াংঝুর বিরুদ্ধে মামলা


চীনা টেলিকম জায়ান্ট প্রতিষ্ঠান হুয়াওয়ের প্রধান আর্থিক কর্মকর্তা মেও ওয়াংঝুর বিরুদ্ধে প্রতারণা-সহ একাধিক অভিযোগে ফৌজদারি মামলা দায়ের করেছে যুক্তরাষ্ট্র।

মঙ্গলবার বিবিসি অনলাইনের প্রতিবেদনে জানানো হয়, যুক্তরাষ্ট্রের বিচার দপ্তর হুয়াওয়ে ও মেং ওয়ানঝুর বিরুদ্ধে বিভিন্ন ফৌজদারি অপরাধের অভিযোগ এনে মামলা করেছে।

মেং ওয়াংঝু হুয়াওয়ের প্রতিষ্ঠাতার মেয়ে। যুক্তরাষ্ট্রের অনুরোধে ১ ডিসেম্বর কানাডার পুলিশ ভ্যাংকুভার থেকে তাকে আটক করে। তাকে যুক্তরাষ্ট্রের কাছে সমর্পণ করা হতে পারে। চীন তার মুক্তির দাবি জানিয়েছে। দেশটির দাবি, তিনি কোনো ধরনের আইন লঙ্ঘন করেননি।

ওয়ানঝুর বিরুদ্ধে মার্কিন নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে ইরানের সঙ্গে ব্যবসা করার অভিযোগ যুক্তরাষ্ট্রের। তবে ওয়ানঝু এই অভিযোগ অস্বীকার করে আসছেন। এ ব্যাপারে হুয়াওয়ের অবস্থানও একই।

গত শুক্রবার ব্রিটিশ কলম্বিয়ার সুপ্রিম কোর্টে জানানো হয়, ২০০৯-২০১৪ সালের মধ্যে ইরানের ওপর আরোপিত নিষেধাজ্ঞা এড়ানোর জন্য মেং স্কাইকম নামে হুয়াওয়ের একটি সাবসিডিয়ারি ব্যবহার করেছিলেন। স্কাইকমকে আলাদা কোম্পানি হিসেবে উপস্থাপন করে মিথ্যা পরিচয় দিয়েছিলেন তিনি। আদালত তার জামিন আবেদনের শুনানি আগামীকাল পর্যন্ত মুলতবি করেছেন।

আদালত প্রতিবেদকরা জানান, শুনানির সময় মেংকে হাতকড়া পরানো হয়নি। তিনি সবুজ রঙের একটি পোশাক পরেছিলেন। কানাডার এক সরকারি আইনজীবী জানান, মেংয়ের বিরুদ্ধে একাধিক আর্থিক প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে প্রতারণার ষড়যন্ত্রের অভিযোগ আনা হয়েছে। তিনি যুক্তরাষ্ট্রের ব্যাংকারদের কাছে হুয়াওয়ে ও স্কাইকমের সরাসরি সম্পর্কের বিষয়টি গোপন রাখেন, যদিও স্কাইকম হুয়াওয়েরই। পলাতক হওয়ার ঝুঁকি থাকায় মেংয়ের জামিন আবেদন নামঞ্জুর হতে পারে বলে আশঙ্কা ওই আইনজীবীর।

প্রসঙ্গত, মেং ওয়াংঝু ১৯৯৩ সালের দিকে রিসিপশনিস্ট হিসেবে তার বাবার কোম্পানি হুয়াওয়েতে যোগ দেন। হুয়াওয়ে বিশ্বের বৃহত্তম টেলিযোগাযোগ যন্ত্রপাতি নির্মাতা ও সেবাদাতা প্রতিষ্ঠানগুলোর একটি। ২০১১ সালে তিনি প্রতিষ্ঠানটির সিএফও হিসেবে নিয়োগ পান। মাত্র কয়েক মাসে তাকে প্রতিষ্ঠানটির ভাইস চেয়ার হিসেবে পদোন্নতি দেয়া হয়।

Recommended For You

About the Author: HumayrA

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *