হাসপাতালে ঢুকে নবজাতক শিশুকে কামড়ালো কুকুর

হাসপাতালে ঢুকে নবজাতক শিশুকে কামড়ালো কুকুর

অনলাইন ডেস্ক: হাসপাতালে প্রসবের পর এক নারীর নবজাতকে কুকুরে খেয়ে ফেলার মতো ঘটনা ঘটেছে।

গতকাল সোমবারের এ ঘটনায় হাসপাতাল মালিক ও তার কর্মীদের বিরুদ্ধে গাফিলতির অভিযোগ এনে মামলা দায়ের করেছে পুলিশ। রোমহর্ষক ঘটনাটি ঘটেছে ভারতের যোগীরাজ্য উত্তর প্রদেশের ফররুখাবাদের একটি বেসরকারি হাসপাতালে।

টাইমস অব ইন্ডিয়ার খবরে বলা হয়, সোমবার সকাল সাড়ে ৮টার দিকে আবাস বিকা কলোনির আকাশ গঙ্গা হাসপাতালে ঘটনাটি ঘটে। রাস্তা থেকে একটি কুকুর হাসপাতালটির অপারেশন থিয়েটারে (ওটি) ঢুকে এক নবজাতকে কামড়ে খেয়ে ফেলে।

নিহত নবজাতকের বাবার নাম রবি কুমার। তিনি টাইমস অব ইন্ডিয়াকে জানান, সকালে তার স্ত্রী কাঞ্চনের প্রসব ব্যাথা উঠলে তাকে আকাশ গঙ্গা হাসপাতালে নিয়ে যান। সেখানে হাসপাতালের নার্সিং স্টাফরা প্রথমে জানান সাধারণ ডেলিভারি হবে। চিকিৎসকের সঙ্গে পরামর্শ করে কিছুক্ষণ পর তারা জানান কাঞ্চনের সিজারিয়ান করাতে হবে।

রবি বলেন, কাঞ্চনকে অপারেশন থিয়েটারে নিয়ে যাওয়া হয়। এক ঘণ্টা পর চিকিৎসকরা জানান তার সফল হয়েছে অস্ত্রোপচার হয়েছে। এবং ছেলে হয়েছে। কাঞ্চনকে ওয়ার্ডে দিয়ে দিলেও আমার সন্তানকে অপারেশন থিয়েটারে রেখে বাইরে অপক্ষো করতে বলা হয়।

কিছুক্ণ পর হাসপাতালের এক কর্মী চিৎকার শুরু করেন। বলতে থাকেন- অপারেশন থিয়েটারে কুকুর ঢুকেছে। বিপদ আঁচ করে আমি ওটির দিকে ছুটে গিয়ে দেখি আমার সন্তান রক্তাক্ত অবস্থায় মেঝেতে পড়ে রয়েছে। ওর বুকে ও বাঁ চোখে কুকুরের কামড়ের দাগ ছিল। ও স্থির হয়ে পড়ে ছিল। নড়াচড়া করছিল না। কুকুরটি আবার অপারেশন থিয়েটারে ঢুকে পড়ার চেষ্টা করলে আমি চিত্‍‌কার করে উঠি, বলছিলেন রবি।

রবি অভিযোগ করে আরও বলেন, আকাশ গঙ্গা হাসপাতালের কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধে গাফিলতির অভিযোগ আনায় তারা টাকা দিয়ে আমাদের চুপ করিয়ে দিতে চেয়েছিল। তারা দাবি করেছে, আমার মৃত সন্তান হয়েছিল। কুকুরটিও ভুলবশত ওটিতে ঢুকে পড়েছিল।

এ ঘটনার পর পরই হাসপাতালটি বন্ধ করে দেওয়া হয়। জেলা প্রশাসক মহেন্দ্র সিং জানান, অভিযোগ পাওয়ার পরই তদন্ত শুরু হয়। হাসপাতালের গাফিলতির জন্যই শিশুটির মৃত্যু হয়েছে। হাসপাতালের মালিক বিজয় প্যাটেল ও তার কর্মীদের বিরুদ্ধে পুলিশ মামলা দায়ের করেছে।

Recommended For You

About the Author: HumayrA

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *