সোমবার ১৭ বাংলাদেশির মরদেহ দেশে আনা হচ্ছে

:: ৭১বিডি২৪ডটকম :: অনলাইন ডেস্ক ::


সোমবার ১৭ বাংলাদেশির মরদেহ দেশে আনা হচ্ছে


নেপালে ইউএস-বাংলার উড়োজাহাজ দুর্ঘটনায় নিহতদের মধ্যে পরিচয় শনাক্ত হওয়া ১৭ বাংলাদেশির মরদেহ (১৯ মার্চ) বাংলাদেশে আনা হচ্ছে।

নেপালে অবস্থানরত ইউএস-বাংলার প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) ইমরান আসিফ জানিয়েছেন, সোমবার এয়াফোর্সের বিশেষ এয়ারক্রাফটে লাশগুলো বাংলাদেশে নিয়ে আসা হবে। তার আগে তাদের স্বজনদের ইউএস-বাংলার এয়ারক্রাফটে নিয়ে যাওয়া হবে।

তিনি আরও জানান, রোববার রাতের মধ্যে গোসল শেষে লাশগুলো প্রক্রিয়াজাত করা হবে। এরপর সোমবার সকাল ৬টায় নেপালে অবস্থিত বাংলাদেশ দূতাবাসে নেয়া হবে। সকাল ৮টায় সেখানে জানাজা শেষে ১৭ লাশ বিমানবন্দরে নেয়া হবে।

শনাক্ত হওয়া মরদেহগুলো হলো- বিলকিস আরা, আখতারা বেগম, মো. রকিবুল হাসান, মো.  হাসান ইমাম, মিনহাজ বিন নাসির, তামারা প্রিয়ন্ময়ী, মো. মতিউর রহমান, এস এম মাহমুদুর রহমান, তাহারা তানভীন শশী রেজা, অনিরুদ্ধ জামান, রফিক উজ জামান এবং পাইলট আবিদ সুলতান, কো-পাইলট পৃথুলা রশিদ, খাজা সাইফুল্লাহ, ফয়সাল, সানজিদা ও নুরুজ্জামান।

এদিকে নেপালে অবস্থানরত বাংলাদেশ মেডিকেল টিমের প্রতিনিধি দলের সদস্য ডা. সোহেল মাহমুদ জানিয়েছেন, প্লেন বিধ্বস্তের ঘটনায় আরও ছয়জনের লাশ শনাক্ত করা হয়েছে। তবে এর মধ্যে কোনো বাংলাদেশি রয়েছেন কি-না বা থাকলেও কতোজন সে বিষয়ে কোনো তথ্য জানা যায়নি।

তিনি জানান, এখন পর্যন্ত শনাক্তকৃত ১৭ বাংলাদেশির লাশ স্বজনরা দেখেছেন। আরো চার বাংলাদেশির মরদেহ শনাক্তকরণ শেষ পর্যায়ে রয়েছে। বাকি পাঁচজনের ডিএনএ টেস্ট করতে হবে। দেশের স্বজনদের সেম্পলও নেয়া হচ্ছে।

প্রসঙ্গত, নেপালের ত্রিভুবন ইউনিভার্সিটি টিচিং হাসপাতালে ১৭ বাংলাদেশির মরদেহ শনাক্তের কথা জানানো হয়েছে। ইউএস-বাংলা এয়ারলাইন্সের বিমান বিধ্বস্তের পাঁচ দিন পর ফরেনসিক পরীক্ষা শেষে এসব মরদেহ  উপস্থিত নিকট স্বজনদের দেখানোর ব্যবস্থা করা হচ্ছে। শনিবার (১৭ মার্চ) সন্ধ্যায় ওই হাসপাতালের মহারাজগঞ্জ ক্যাম্পাসের ইন্সটিটিউট অব মেডিসিন-এর সামনে ফরেনসিক বিভাগের পক্ষ থেকে ১৪টি মরদেহের পরিচয় জানান হাসপাতালটির ফরেনসিক বিভাগের প্রধান প্রমোদ শ্রেষ্ঠা। এ সময় বাংলাদেশি মেডিক্যাল টিমের সদস্য ও ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের ফরেনসিক বিভাগের প্রধান সোহেল মাহমুদ উপস্থিত ছিলেন। পরে বাংলাদেশ দূতাবাস থেকে আরও তিনজনের পরিচয় জানানো হয়েছে। বাংলাদেশ মেডিক্যাল টিমের সদস্য ডা. ইমাম হোসাইন এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

উল্লেখ্য, ১২ মার্চ ইউএস-বাংলা এয়ারলাইন্সের একটি ফ্লাইট নেপালের কাঠমান্ডুর ত্রিভুবন আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে অবতরণের সময় পাশের একটি ফুটবল মাঠে বিধ্বস্ত হয়। ওই বিমানটিতে চার জন ক্রুসহ ৭১ জন আরোহী ছিলেন। এর মধ্যে ৪৯ জন আরোহী নিহত হয়েছেন। নিহতদের মধ্যে বিমানটির ৪ জন ক্রুসহ  ২৬ জন বাংলাদেশি, ২২ জন নেপালি ও চীনের একজন যাত্রী রয়েছেন। আহত ২২ জন আরোহীর মধ্যে ১০ জন বাংলাদেশি, ১১ জন নেপালি ও একজন মালদ্বীপের।

Recommended For You

About the Author: HumayrA

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *