শেবাচিম হাসপাতালের সিসিইউতে অগ্নিকান্ড

৭১বিডি২৪ডটকম । করেসপন্ডেন্ট:


অগ্নিকান্ড


বরিশাল : বরিশাল শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ (শেবাচিম) হাসপাতালের কার্ডিওলজি বিভাগের সিসিইউ ইউনিটে অগ্নিকান্ডের ঘটনা ঘটেছে।

সর্টসার্কিটেটর মাধ্যমে লাগা এ আগুনে ওয়ার্ডের রোগীদের জন্য রাখা একটি মনিটর ক্ষতিগ্রস্থ হলেও কোন রোগীর কোন ধরনের সমস্যা হয়নি বলে জানিয়েছে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ।

রোববার রাত সাড়ে ৯ টার দিকে অগ্নিকান্ডের এ ঘটনার পর ওই ওয়ার্ডে চিকিৎসাধীন হৃদরোগে আক্রান্ত এক রোগী মৃত্যু হলে কিছুটা ভীতি ছড়িয়ে পরে।

ঘটনার প্রতক্ষদর্শী সিসিইউ ওয়ার্ডে ভর্তিরত রোগীর স্বজন মেহেন্দীগঞ্জ উপজেলার বাসিন্দা জয়নাল মিয়া জানান, তার স্বজন মোশারেফ হোসেন (৩৫) কে মুমুর্ষ অবস্থায় হাসপাতালের সিসিইউ ওয়ার্ডে ভর্তি করেন। চিকিৎসক তার শরীরে কার্ডিয়াক মনিটর লাগিয়ে শারিরীক অবস্থা পর‌্যবেক্ষন করছিলেন। রাত সাড়ে ৯ টার দিকে মনিটরের পেছন দিক থেকে সর্টসার্কিটের মাধ্যমে আগুন লাগ।

তাৎক্ষনিক ওই ওয়ার্ডের ভেতরে থাকা রোগীদের স্বজনরা বের করে আনেন।

ওয়ার্ডের চিকিৎসক সাইদুর রহমান জানান, আগুন লাগার সাথে সাথে সবাই মিলে রোগীদের বাহিরে বের করে আনেন এবং অগ্নি নির্বাপক সিলিন্ডারের সহায়তায় আগুন নিভিয়ে ফেলেন। তবে এতে কোন রোগীর কোন ধরনের সমস্যা হয়নি। যে একজন রোগীর মৃত্যু হয়েছে তিনি স্বাভাবিক ভাবেই মারা গেছেন। আগুন লাগার ঘটনার সাথে তার মৃত্যুর কোন সম্পর্ক নেই।

মৃত ভোলার বোরহানউদ্দিনের বাসিন্দা ৬০ বছরের নুরুল ইসলামের মেয়ে রিংকু জানান, তার বাবা এ হাসপাতালে মুমুর্ষ অবস্থায় ভর্তি হয়। চিকিৎসকরা তার চিকিৎসা করছিলেন। হঠাৎ আগুন লাগার পরে তারা রোগীকে নিয়ে ওয়ার্ড থেকে পাশের ওয়ার্ডে চলে আসেন। এরপর তার বাবার মৃত্যু হয়। তবে এখানে আগুন লাগার ঘটনার সাথে বাবার মৃত্যুর কোন সম্পর্ক নেই বলে দাবী তার।

হাসপাতালের পরিচালক ডাঃ সিরাজুল ইসলাম জানান, খবর পেয়ে তিনি হাসপাতালে এসে পর‌্যবেক্ষন করেছেন। সর্টসার্কিটের মাধ্যমে এ আগুন মনিটরটিতে লাগে। তবে ইউনিটের ১৬ টি বেডের মধ্যে ভর্তিরত ১৪ বেডের কোন রোগী ও স্বজনদের কেউ হতাহতের খবর নেই। পাশাপাশি চিকিৎসক ও সেবিকারাও ঠিক আছেন। রোগীরা সব ভালো রয়েছন। যে রোগীর মৃত্যু হয়েছে তিনি ঘটনাস্থল থেকে দূরে ছিলেন। আর ওই রোগীর আগে থেকেই কার্ডিওলজিক শক সহ নানান সমস্যা ছিলো।

তিনি বলেন, যে রোগীর মনিটরে আগুন লেগেছে তিনিও ভালো রয়েছেন, তাকে পোষ্ট সিসিইউ’র ৫ নম্বর বেডে স্থানান্তর করা হয়েছে। অপরদিকে সিসিইউ ইউনিট প্রকৌশলীরা পরিদর্শন করছেন। তারা জানিয়েছেন আগুন লাগার স্থান ছাড়া সার্বিক সবকিছু ঠিক রয়েছে। রাতেই রোগীদের ওয়ার্ডে ফিরিয়ে আনা যাবে।

এদিকে ফায়ার সার্ভিস বরিশাল স্টেশনের দেবাশীষ বিশ্বাস জানান, তারা প্রথমবার খবর পেলেও সে বার আগুন এমনিতেই নিভে যায়। পরবর্তীতে খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে এসে দেখতে পান অগ্নিনির্বাপক সিলিন্ডার দিয়ে আগুন নিভিয়ে ফেলা হয়েছে। সর্ট সার্কিটের মাধ্যমে এ আগুনের সূত্রপাত ঘটেছে বলে প্রাধমিকভাবে ধারনা করা হচ্ছে।

Recommended For You

About the Author: HumayrA

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *