মির্জাগঞ্জে ঝুপড়ি ঘরে পাঠদান

:: ৭১বিডি২৪ডটকম :: মোঃ সোহাগ হোসেন ::


মির্জাগঞ্জে ঝুপড়ি ঘরে পাঠদান


:: মির্জাগঞ্জ (পটুয়াখালী) ::  শিক্ষক আছে, আছে শিক্ষার্থীও কেবল বিদ্যালয় ভবন নেই। একটি জরাজীর্ণ ঝুপড়ি ঘরের মধ্যে চলছে পাঠদান।

এমনই একটি বিদ্যালয় হচ্ছে পটুয়াখালীর মির্জাগঞ্জ উপজেলার পূর্ব মির্জাগঞ্জ এস.এম মাধ্যমিক বিদ্যালয়। নির্মানের ৩৩বছর পার হলেও সরকারি ভবনতো দুরের কথা একখানা ইটও বরাদ্ধ হয়নি এ বিদ্যালয়ে। মির্জাগঞ্জের প্রত্যন্ত অঞ্চলে ১৯৮৫ সালে স্থানীয় আলহাজ মোঃ ইউসুফ আলী হাওলাদারের সহযোগীতায় বিদ্যালয়টি প্রতিষ্ঠিত হয়। একটি দোচালা টিনের ঝুপড়ি ঘরের মধ্যে চলছে পাঠদান।

বর্তমানে বিদ্যালয়টিতে ২৫০জন শিক্ষার্থী, ৭জন শিক্ষাক ও ৪জন কর্মচারী রয়েছে। পায়রানদীর তীরবর্তী হওয়ায় প্রাকৃতিক দুর্যোগের সময় বিদ্যালয়টি নানা ভাবে ক্ষতিগ্রস্থ হয়। বর্ষা মৌসুমে জোয়ারের পানি ঢুকে বিদ্যালয়ের শ্রেণিকক্ষগুলো তলিয়ে যায়। বিদ্যালয়টি ১৯৮৭ সালে এমপিওভূক্ত হলেও বিদ্যালয়টির অবকাঠামোর কোন উন্নতি হয় নাই। বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মোঃ আঃ ছালাম বলেন, নষ্ট হয়ে যাওয়ার ভয়ে বিদ্যালয়ের কাগজপত্র ছুটির সময় বাড়িতে নিয়ে যাই আবার বাড়ীথেকে আসার সময় সঙ্গে করে নিয়ে আসি।

এব্যপারে অনেকবার উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে অবহিত করা হলেও এখনো কোন ব্যবস্থা গ্রহন করা হয়নি। সরোজমিনে গিয়ে জরাজীর্ণ ঘরের ছবি তোলার সময় বিদ্যালয়ের ৬ষ্ঠ শ্রেণির ছাত্র নূর নবী বলে, আমাগো স্কুলডা কি আপনারা ঠিক কইরা দিবেন? টিন লাগাইয়া দিবেন ? বৃষ্টি আইলে আমাগো বই খাতা ভিজ্জা যায়। এসময় অন্য শিক্ষার্থীরা একই কথা বলেন। এখানে একটি পাকা স্কুল ভবন নির্মানের জন্য অভিভাবক সহ স্থানীয়রা সরকারেরর কাছে দাবি জানিয়েছেন।

Recommended For You

About the Author: HumayrA

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *