বিসিসি কর্মকর্তা-কর্মচারীদের আল্টিমেটাম

 

:: ৭১বিডি২৪ডটকম :: ব্যুরো প্রধান ::


বিসিসি কর্মকর্তা-কর্মচারীদের আল্টিমেটাম


:: বরিশাল :: মঙ্গলবার (১৩ মার্চ) এর মধ্যে বকেয়া বেতন ভাতা পরিশোধের জন্য ব্যবস্থা নেয়ার সিদ্ধান্ত না নিলে ১৪ মার্চ পূর্ণদিবস কর্মবিরতী ও সকল শাখা তালাবদ্ধ করার হুমকি দিয়েছে বরিশাল সিটি কর্পোরেশনের (বিসিসি) আন্দোলনরত কর্মকর্তা কর্মচারীরা।

সোমবার (১২ মার্চ )দুপুর ১টায় নগর ভবনের তৃতীয় তলার সভাকক্ষে আয়োজিত এক মতবিনিময় সভায় এই আল্টিমেটাম ঘোষণা করা হয়। লিখিত বক্তব্যে সিটি কর্পোরেশনের পরিচ্ছন্ন কর্মকর্তা দীপক লাল মৃধা বলেন, গত ১১ মার্চ সমঝোতা মেয়রের মনোনীত প্রতিনিধিদের (কাউন্সিলরদের) সাথে সমঝোতা বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। বৈঠকে আগামী ১৫ এপ্রিলের মধ্যে ৩ কিস্তিতে ৫ মাসের বেতন ও ১০ টি প্রভিডেন্ট ফান্ডের টাকা পরিশোধের সিদ্ধান্ত হলেও তাতে শেষ পর্যন্ত স্বাক্ষর করেন নি মেয়র এবং তার প্রতিনিধিগন।  এই অবস্থায় আগামীকাল মঙ্গলবারের মধ্যে যদি সমঝোতা বৈঠকের ওই সিদ্ধান্ত মেনে নেয়া না হয় তাহলে ১৪ মার্চ থেকে নতুন করে আন্দোলন শুরু হবে। সেই হিসেবে ১৪ই মার্চ থেকে পূর্ন দিবস কর্ম বিরতি পালনের পাশাপাশি নগর ভবনের সকল শাখায় তালা ঝুলিয়ে দেয়া হবে। তবে তাতেও যদি কাজ না হয় তবে ১৮ মার্চ থেকে কঠোর কর্মসূচীসহ চলমান পানি, বিদ্যুৎ, নগর পরিস্কার পরিচ্ছন্নতা সেবা বন্ধ করে দেয়া হবে।সংবাদ সম্মেলনে আরো উপস্থিত ছিলেন সমাজ উন্নয়ন কর্মকর্তা রাসেল খান, এ্যাসেসর কাজী মোয়াজ্জেম হোসেন, মোঃ অহিদুল ইসলাম মুরাদ, একে এম হেলাল উদ্দিন, নুর খান, রেজাউল করীম, শানু জমাদ্দার ও জিয়া উদ্দিন সহ স্থায়ী ও দৈনিক মজুরী ভিত্তিক কর্মকর্তা-কর্মচারীগন।উল্লেখ্য গত ১৮ ফেব্রুয়ারি থেকে বকেয়া বেতন ও প্রভিডেন্ট ফান্ডের টাকার জন্য কর্মবিরত, অবস্থান কর্মসূচী, মানববন্ধন কর্মসূচী পালন করে আসছে সিটি কর্পোরেশনের স্থায়ী ও দৈনিক মজুরী ভিত্তিক ২ হাজারের ওপর কর্মকর্তা-কর্মচারী ও শ্রমিকরা।কিন্তু দফায় দফায় সমঝোতা বৈঠক হলেও কর্তৃপক্ষ তাদের দাবী দাওয়া এখনো মেনে নেয়ানি।

আন্দোলনরত কর্মকর্তা-কর্মচারীরা জানান, বিসিসিতে স্থায়ী ও অস্থায়ী মিলিয়ে ২ হাজারের বেশি কর্মকর্তা-কর্মচারী রয়েছে। স্থায়ী কর্মকর্তা-কর্মচারীরা সব শেষ জানুয়ারী মাসে গত বছরের আগস্ট মাসের বেতন পেয়েছেন। সে হিসেবে এখন স্থায়ী কর্মকর্তা-কর্মচারীদের ৬ মাসের বেতন বকেয়া। অপরদিকে দৈনন্দিন মজুরী ভিত্তিক কর্মচারীদের ৫ মাসের বেতন বকেয়া হয়েছে। পাশাপাশি প্রভিডেন্টফান্ডের ২৩ মাসের অর্থ বরাদ্দ হয়ে ব্যাংকে যায়নি।

Recommended For You

About the Author: HumayrA

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *