বিশ বছরে সব বদলে গেলেও বদলায়নি হকার বজলুর ভাগ্য !

:: ৭১বিডি২৪ডটকম :: মু. জিল্লুর রহমান জুয়েল ::


বিশ বছরে সব বদলে গেলেও বদলায়নি হকার বজলুর ভাগ্য !



:: গলাচিপা(পটুয়াখালী) :: প্রতিদিন কত খবর আসে কাগজের পাতা ভরে, কত খবর রয়েযায় কাগজের আগে পরে কিন্তু বিশ বছরে সব বদলে গেলেও বদলায়নি হকার বজলুর ভাগ্য !

পটুয়াখালীর গলাচিপা উপজেলার চিকনিকান্দী ইউনিয়নের সুতাবাড়িয়া গ্রামের বাসিন্দা প্রিয় হকার বজলু ভাই। দুই যুগের’ও বেশি সময় ধরে রোদ-বৃষ্টিঝড়ে পৌছে দিয়েছে প্রতিদিনের খবর।
যে মানুষটি সুখ, দুঃখ, আনন্দন বেদনার খবর পৌছে দেয়, যে মানুষটির একটি দিনের জন্যও থেমে থাকেনি খবর পৌছে দেয়ার দৈনন্দিন কাজ। আমরা কি কখনো খোজ নিয়েছি? কি’করে চলছে বজলু ভাইয়ের পারিবারিক জীবন। অর্থের অভাবে সুচিকিৎসা করতে না পাররলেও, সন্তানদের উচ্চ শিক্ষায় শিক্ষিত করতে চলছে তার জীবন যুদ্ধ। সন্তানদের শিক্ষা ব্যবস্থার প্রয়োজনীয় চাহিদা পুরুনে নিজেকে উৎস্বর্গ করেছেন। এতটা প্রতিকুল অবস্থায় থেমে যায়নি,

দৈন্দিন খবর পৌছে দেয়ার কাজ।সরেজমিন দৈনন্দিন কাজের ফাকে হঠাৎ করেই দেখামেলে সকলের সাথে। এমনি করেই গত ১২ মে সন্ধায় দশমিনা রনগোপালদী ইউনিয়নে দেখা হয়ে যায় প্রিয় চেনামুখ হকার বজলু ভাইয়ের সাথে জেলার সিনিয়র সাংবাদিক জিল্লুর রহমানের। জিল্লুর রহমান জানান, তাকে জড়িয়ে প্রকাশ করলেন সংবাদ কর্মীদের প্রতি তার শ্রদ্ধা। ভালো বাসায় জড়িয়ে ধরলেন কিছুক্ষন। পারিবারিক অস্থার কথা জানতেই আবেগপূর্ণ হয়ে পড়েন।

কেমন চলছে বজলু ভাই, উত্তরে আছি ভাই। জীবন চলছে জীবনের নিয়মে। সাংবাদিক ভাইরা ভালো থাকলেই আমি ভালো থাকি। আপডেট খরব জানতে চাইলেন, উত্তরে তিনি জানালেন আমার সাংবাদিক ভাইরা সবাই ভালো আছেন এটাই আমার বড় আপডেট। জানালে বর্তমান পরিস্থিতি। দূটি মেয়ে লেখাপড়া করছে তাই খরচটা বেড়েছে। পথম মেয়েটি ডিগ্রীতে অন্যটি এইচ এস সি পড়ে। শিক্ষার বিকল্প নেই ভেবেই সংরাম করে চলছি। অনেক কিছু বদলে গেলেও’ নিজের ভাগ্যবদলাতে পারিনি। তবে এটা সত্য প্রতিনিয়ত বাড়ছে নানা দুশ্চিন্তা। দীর্ঘ নিশ্বাস ফেলে বলেন, নানা প্রতিবন্ধকতায় চলছি জানি, তার পরেও জীবনের শেষ পর্যন্ত কর্মজীবন চালিয়ে যাবো এ পেশায়। পাশে থাকবো সংবাদ ও সংবাদ কর্মীদের। প্রতিদিন পত্রিকা বিক্রি করে, জীবন সংসার আর মেয়েদের লেখা পড়া সহ কর্মজীবন পার করছেন এই মানুষটি।

দীর্ঘ আলোচনায় বুঝতে পারলাম খবরের পিছনেও খবর থাকে। যার খবর আমরা কখনো রাখিনা। হকার বজলু ভাইয়ের দারিদ্র্যতার বিষয়ে, গলাচিপা প্রেস ক্লাবের সভাপতি সমিত কুমার মলয় দত্ত, গলাচিপা রিপোর্টস ক্লাবের সভাপতি সাজ্জাদ আহমেদ মাসুদ বলেন, আসলে বিষয়টি অত্যান্ত দুঃক্ষজনক হলেও সত্য যে, হকার বজলু ভাই, দীর্ঘদিন যাবৎ সম্মানিত পাঠকের কাছে পৌছে দিয়েছেন।

“মানুষ, মানুষের জন্য” তাই আসুন সাংবাদিক বন্ধুরা বজলু ভাইয়ের জন্য সরকারী কোন অনুদানের ব্যবস্থা করি। অন্যথায় আমরা সকলে মিলে তার জন্য কিছু করি। অন্যদিকে পটুয়াখালী দশমিনা প্রেস ক্লাবের সাধারণ সম্পাদক মোঃ সোহাগ বলেন, আমাদের পক্ষ থেকে সকল সাংবাদিক বৃন্দদের সাথে হকার বজলু ভাইয়ের বিষয়টি উপস্থাপন করবে বলে প্রতিবেদককে জানান। অন্যদিকে পটুয়াখালী জেলার সিনিয়র সাংবাদিক এবং অসহায়দের বন্ধু জলিলুর রহমান সোহেল বলেন, হকার বজলু ভাই সকলের। সাংবাদিক পেশায় আমরা সকলেই একে অপরের পরিপূরক। অন্ততপক্ষে তার বেলায় বিবেদ ভুলে যাই।

বজলু ভাইয়ের জন্য আর্থিক অনুদানের চেষ্টা করি। পটুয়াখালী জেলার সকল সাংবাদিক বন্ধুরা হকার বজলু ভাইয়ের পাশে দাড়িয়ে বাস্তবায়নে ভূমিকা রাখবে এটাই সকলের কাছে প্রত্যাশা।

Recommended For You

About the Author: HumayrA

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *