বিএনপি মনোনয়ন প্রত্যাশীর লাশ উদ্ধার, পুলিশকে ব্যবস্থা নেয়ার নির্দেশ সিইসির

:: ৭১বিডি২৪ডটকম :: ডেস্ক রিপোর্ট ::


বিএনপি মনোনয়ন প্রত্যাশীর লাশ উদ্ধার, পুলিশকে ব্যবস্থা নেয়ার নির্দেশ সিইসির


রাজধানীর পল্টন থেকে নিখোঁজ বিএনপির মনোনয়ন প্রত্যাশী এবং যশোরের বিএনপি নেতা আবু বকর আবুর লাশ বুড়িগঙ্গা নদীতে পাওয়ার ঘটনায় পুলিশকে তদন্ত করে ব্যবস্থা নেয়ার নির্দেশ দিয়েছেন প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কে এম নরুল হুদা।

শুক্রবার (২৩ নভেম্বর) সকালে রাজধানীতে নির্বাচন প্রশিক্ষণ ইনস্টিটিউটে নির্বাচনী প্রশিক্ষকদের প্রশিক্ষণের উদ্বোধন শেষে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে তিনি এ নির্দেশ দেন।

আবু বকর আবু যশোর জেলা বিএনপির সহসভাপতি। একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে দলীয় মনোনয়ন পেতে সাক্ষাৎকার দিতে রাজধানীতে আসেন তিনি। চার দিন আগে নিখোঁজ হন।

বিএনপির সেই নেতা পুলিশ হেফাজতে ছিলেন, তাকে আটক করা হয়েছিল বিষয়টি সাংবাদিকরা নজরে আনলে সিইসি বলেন, তিনি পুলিশ হেফাজতে ছিলেন? আমরা পুলিশকে এ বিষয়ে নির্দেশনা দেব যেন তদন্ত করে দোষীদের আইনের আওতায় আনা হয়।

কেএম নূরুল হুদা বলেন, একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে কতো ইভিএম ব্যবহার হবে সে বিষয়ে দু’একদিনের মধ্যে সিদ্ধান্ত হবে। ইভিএম একটি নতুন উদ্যোগ। ব্যালটে ভোট দেওয়ার যে ঝামেলা সেটি দূর করতে হবে। ইভিএম সেটা করতে পারে। ইতোপূর্বে স্থানীয় সরকার নির্বাচনে এটি ব্যবহার করা হয়েছে। সংসদ নির্বাচনে ইভিএম ব্যবহারে কোনো অাইনগত বাধা নেই। সেটা আমরা ব্যবহার করবো।

এর আগে প্রশিক্ষকদের উদ্দেশ্যে তিনি বলেন, ৩০ ডিসেম্বরের জন্য আমাদের ব্যাপক প্রস্তুতি। দিনটি খুবই গুরুত্বপূর্ণ। এদিনে জনগণ তাদের প্রতিনিধিকে নির্বাচন করবে। রাজনৈতিক দলসহ সবার জন্য একটি গুরুত্বপূর্ণ দিন।

তিনি বলেন, নিরপেক্ষতা, কারিগরি দক্ষতা, নির্বাচন পরিচালনায় আইন বিধি-বিধান জানা দরকার। আপনারা নির্বাচন কিভাবে পরিচালনা করবেন সেটা জানলেও, সহকারী প্রিজাইডিং অফিসারদের জানার কথা নয়। বার বার বিভিন্ন পর্যায়ে এই ট্রেনিং দেয়া হয়েছে। নির্বাচন সুষ্ঠু করতে আপনারা প্রতিজ্ঞাবদ্ধ। আপনারা তাদের সঠিকভাবে প্রশিক্ষণ দেবেন।

প্রশিক্ষকদের উদ্দেশ্যে তিনি আরও বলেন, পোলিং এজেন্টদের প্রশিক্ষণ দেয়ার সময় সতর্ক থাকতে হবে। কারণ তারা রাজনৈতিক দলের প্রতিনিধি। তারা থাকেন মাঠে, তাদের কথা মনোযোগ দিয়ে শুনতে হবে। অনেক সময় তীর্যক কথা বলতে পার, কিন্তু নেয়া যাবে না। তারা প্রশ্ন করবে, জানতে চাইবে সেটি তাদের বোঝাবেন। রাজনৈতিক ব্যক্তিত্ব যারা আছে তাদের সমস্যাগুলো বোঝাতে হবে। সমস্যাগুলো দেখতে হবে। তাদের প্রশ্ন শুনে ধৈর্য সহকারে উত্তর দিতে হবে।

Recommended For You

About the Author: HumayrA

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *