বাউফলে ব্যাংক থেকে ভাতা উত্তোলনে নজরানা

এম অহিদুজ্জামান ডিউক; 


বাউফল


বাউফল (পটুয়াখালী): পটুয়াখালীর বাউফলে বয়স্কভাতা, বিধবা ভাতা, পেনশনসহ বিভিন্ন ভাতা উত্তোলন ও নতুন হিসাব খুলতে ব্যাংক সংশ্লিষ্ট কর্মচারিকে দিতে হয় নজরানা উপজেলার প্রানকেন্দ্রে অবস্থিত সোনালী ব্যাংকে প্রতিনিয়ত ঘটছে এ ঘটনা।

আব্দুর রহমান নামে এক অবসর প্রাপ্ত স্কুল শিক্ষক অভিযোগ করে বলেন, সোনালী ব্যাংক বাউফল শাখা থেকে বয়স্কভাতা, বিধবা ভাতা,অবসর প্রাপ্ত শিক্ষক ও সরকারি কর্মচারিদের ভাতা তুলতে হয়। ব্যাংক যে তারিখে উক্ত ভাতা প্রদান করেন সেই দিন ভাতা নিতে আসা লোকদের কাছ থেকে সিরিয়াল করার কথা বলে কৌশলে ভাতা প্রদানের বইগুলো হাত করে নেয়। এর পরে ভাতার টাকা প্রদান কালে প্রত্যেকের কাছ থেকে ৫০ থেকে ১০০ টাকা করে কর্তন করে রেখে দেয় ব্যাংক। যারা উক্ত নজরানা টাকা দিতে চায় না তাদের বই লুকিয়ে রেখে বই পাওয়া যায়না বলে তাদেরকে পরের দিন বা আসতে বলে কালক্ষেপন করা হয়। আদায়কৃত টাকা ব্যাংক কর্মকর্তা কর্মচারীরা হিস্যামতো নিজেদের মধ্যে ভাগ বাটোয়ারা করে নেয়। এছাড়া ওই ব্যাংকে কেউ একাউন্ড খোলতে চাইলে অফিস খরচ বাবদ টাকা দিয়ে দালালদের মাধ্যমে একাউন্ড খোলতে হয় বলে শারমিন, ঝুমুর ও এজলিন নামের প্রাইমারী স্কুল শিক্ষকরা জানান। নাম প্রকাশে ওই ব্যাংকের এক কর্মকর্তা বলেন, এ ব্যাংকের অধিকাংশ কর্মকর্তা ও কর্মচারি স্থানীয় হওয়ায় প্রভাব বিস্তারের কারনে এ ধরনের ঘটনা ঘটে। এ ব্যাপারে ওই ব্যাংকের ম্যানেজার রফিকুল ইসলাম বলেন, ব্যাংক থেকে টাকা তুলতে কাউকে অতিরিক্ত কোন টাকা দিতে হয় না। যদিকোন কর্মকর্তা কর্মচারী গ্রাহকদের সাথে খারাব আচরন করে থাকে তবে অবশ্যই বিষয়টি গুরুত্বের সাথে দেখব।

Recommended For You

About the Author: HumayrA

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *