বাংলাদেশ এখন বিশ্বমনবতার দৃষ্টান্তে পরিণত: প্রধানমন্ত্রী

৭১বিডি২৪ডটকম ॥ অনলাইন ডেস্ক;


প্রধানমন্ত্রী
ফাইল ফটো

সাম্প্রতিক ইতালি সফর নিয়ে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, বাংলাদেশ এখন বিশ্বমানবতার দৃষ্টান্ত হিসেবে পরিচিতি পেয়েছে। আমি এবার পোপ ফ্রান্সিসের আমন্ত্রণে ভ্যাটিকান সিটিতে গিয়েছিলাম। সেখানে তার সঙ্গে আমার বৈঠক হয়েছে। তিনি বাংলাদেশের সার্বিক অবস্থার প্রশংসার পাশাপাশি, ১০ লাখ রোহিঙ্গাদের আশ্রয় ও খাদ্য বাংলাদেশ এখন বিশ্বমনবতার দৃষ্টান্তে পরিণত হয়েছে বলে মন্তব্য করেছেন।

সোমবার (১৯ ফেব্রুয়ারি) বিকেল পৌনে ৪টায় গণভবনে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে ইতালি সফর নিয়ে তিনি এ কথা বলেন।

এই সফরে সময় আমি পোপকে বলেছি, কফি আনান কমিশনের প্রস্তাব মেনে রোহিঙ্গা সঙ্কটের সমাধান করতে হবে। আগামী বর্ষার আগেই রোহিঙ্গাদের প্রত্যাবর্তন শুরু করতে হবে। এরপাশাপাশি মিয়ানমারের তাদের জন্য নিরাপদ জায়গার নিশ্চয়তা দিতে হবে। তাদের সাময়িক সমস্যা কাটিয়ে উঠতে মিয়ানমারে ফিরে যাওয়ার পরও যেনো রোহিঙ্গাদের খাদ্য সহায়তা চালিয়ে যাওয়া হয় সেজন্য বিশ্ব খাদ্য সংস্থাকে অনুরোধ করেছি।

সফরে ইফাদের সঙ্গে দেশের উত্তর-পূর্বের ৬ জেলার ২৫ উপজেলার গ্রামীণ পিছিয়ে পড়া মানুষের অবকাঠামো ও বাজার উন্নয়নে ৯২ মিলিয়ন ডলারের ঋণ চুক্তি সই করার কথা উল্লেখ করেন।

প্রশ্ন ফাঁসের ব্যর্থতার জন্য কোনো ব্যবস্থা নেওয়া হবে কি না- মাছরাঙা টেলিভিশনের রেজওয়ানুল হক রাজার প্রশ্নে প্রধানমন্ত্রী বলেন, প্রশ্ন ফাঁস নতুন কিছু না, কখনও প্রচার হয়, কখনও প্রচার হয় না।

প্রশ্নগুলো কতদিন আগে ফাঁস হয়েছে, তা জানতে চান প্রধানমন্ত্রী। উত্তর পেয়ে বলেন, ২০ মিনিট আগে প্রশ্ন ফাঁস হলে আপনি কি করবেন?

তিনি বলেন, আর আমাদের এখানে এত বেশি ট্যালেন্টেড কে আছে, আধা ঘণ্টা আগে, ২০ মিনিট আগে ওই প্রশ্ন অনুযায়ী বই খুলে উত্তর মুখস্থ করে খাতায় লিখবে, এত ট্যালেন্টেড কে আছে?

বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে যারা আন্দোলন করছে, তাদের প্রতি প্রশ্ন রেখে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, কারো যোগ্যতা ছিলো না? দলের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারপারসন হওয়ার? যে একজন বিদেশ পালিয়ে থাকা ফেরারি আসামিকে ভারপ্রাপ্ত চেয়ারপারসন করতে হলো?

প্রধানমন্ত্রী বলেন, একজন দুর্নীতির অপরাধে তত্ত্বাবধায়ক সরকারের সময় রাজনীতি করবে না বলে মুচলেকা দিয়ে বিদেশে চলে গিয়েছিল। দুর্নীতি মামলায় আমেরিকার এফবিআই এসে সাক্ষী দিয়ে গেছে তার দুর্নীতি। এমন একজন বিদেশে পালিয়ে থাকা ফেরারি আসামিকে ভারপ্রাপ্ত চেয়ারপারসন করতে হলো?

সাংবাদিকদের উদ্দেশ্যে তিনি বলেন, আপনাদের মাধ্যমে এখন যারা আন্দোলন করছে, তাদের কাছে একটা প্রশ্ন কারো যোগ্যতা ছিলো না? দলের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারপারসন হওয়ার? এর বেশি কিছু বলতে চাই না। কারণ আমরা কথা বললেই তো দোষ হয়।

শেখ হাসিনা বলেন, নির্বাচন না করলে কারও কিছু করার নেই, গতবারও করেনি। নির্বাচনে যদি না আসে, তাহলে আমাদের কিছু করার নেই। নির্বাচন সময় মতোই হবে।

হাসিনা আরও বলেন, এতিমের টাকা মেরে খেলে শাস্তি, এটা আদালতও দেয়, আল্লাহর তরফ হতেও দেয়। আমাদের তো কিছু করে নাই।

এই মামলাটা ১০ বছর চলেছে। এই মামলায় তিন বার জজ পরিবর্তন হয়েছে, সময় চেয়েছে ১০৯ বার। বহু টালবাহানা আপনারা দেখেছেন। ২৬১ দিনের মতো তারিখ পড়ল। আপিল বিভাগে ২২ বার রিট করা হয়েছিল। এত কিছুর পর তিনি মাত্র ৪৩ দিন কোর্টে হাজির হয়েছিলেন।

সংবাদ সম্মেলনে ৫৭ ধারা আইন বাতিল করে নতুন করে ৩২ ধারা আইনের মাধ্যমে গণমাধ্যমকে অবরুদ্ধ করা হচ্ছে। এমন প্রশ্নে প্রধানমন্ত্রী বলেন, এই ধারার অপপ্রয়োগ করার সুযোগ নেই। কেউ অপরাধ না করলে তার ভয় পাওয়ার কি আছে?

সংবাদ সম্মেলনে বক্তব্য দেয়ার শেষ মুহুর্তে এসে প্রধানমন্ত্রী বলেন আপনাদের জন্য তিনটি সুসংবাদ আছে। এর মধ্যে প্রথমেই বাংলাদেশ ফোর-জি’র যুগে প্রবেশের কথা উল্লেখ করেন প্রধানমন্ত্রী। এরপর আগামী মার্চে স্যাটেলাইট উৎক্ষেপণ এবং সবশেষ যুক্তরাজ্যের কার্গো নিষেধাজ্ঞা তুলে নেওয়ার খবর দেন তিনি। এসময় প্রধানমন্ত্রী সংশ্লিষ্ট সবাইকে ধন্যবাদও জানান।

Recommended For You

About the Author: HumayrA

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *