February 21, 2024, 3:16 pm

বরিশাল মেট্রোপলিটন এলাকাকে স্মার্ট মহানগরী হিসেবে গড়ে তুলবো- বিএমপি পুলিশ কমিশনার

বরিশাল অফিস:
বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রা, কমিউনিটি সমাবেশ, রক্তদান কর্মসূচি, মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান, প্রীতি ফুটবল ম্যাচ, পুরস্কার বিতরণীসহ নানান আয়োজনের মধ্য দিয়ে উৎসবমুখর পরিবেশে বিএমপি কর্তৃক “কমিউনিটি পুলিশিং ডে-২০২৩" উদযাপন।
বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রা, কমিউনিটি সমাবেশ, রক্তদান কর্মসূচি, মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান, প্রীতি ফুটবল ম্যাচ, পুরস্কার বিতরণীসহ নানান আয়োজনের মধ্য দিয়ে উৎসবমুখর পরিবেশে বিএমপি কর্তৃক “কমিউনিটি পুলিশিং ডে-২০২৩" উদযাপন।

বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রা, কমিউনিটি সমাবেশ, রক্তদান কর্মসূচি, মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান, প্রীতি ফুটবল ম্যাচ, পুরস্কার বিতরণীসহ নানান আয়োজনের মধ্য দিয়ে উৎসবমুখর পরিবেশে বিএমপি কর্তৃক “কমিউনিটি পুলিশিং ডে-২০২৩” উদযাপন।

“পুলিশ-জনতা ঐক্য করি, স্মার্ট বাংলাদেশ গড়ে তুলি” এই প্রতিপাদ্যকে সামনে রেখে ৪ নভেম্বর বরিশাল শিল্পকলা একাডেমি অডিটোরিয়ামে বিএমপি কর্তৃক “কমিউনিটি পুলিশিং ডে-২০২৩” উদযাপন উপলক্ষে আয়োজিত কমিউনিটি সমাবেশে সভাপতি হিসেবে উপস্থিত থেকে এ কথা বলেন পুলিশ কমিশনার বিএমপি মোঃ সাইফুল ইসলাম, বিপিএম-বার ।

অনুষ্ঠানের শুরুতে গত ২৮ অক্টোবর ২০২৩তারিখ দায়িত্ব পালনরত অবস্থায় বিএনপি নেতাকর্মীদের নির্মম হামলায় নিহত পুলিশ সদস্য মোঃ আমিরুল ইসলামসহ গত একবছরে মৃত পুলিশ ও কমিউনিটি পুলিশিং সদস্যদের স্মরণে এক মিনিট নিরবতা পালন করা হয়।

এ সভায় বক্তব্যের শুরুতেই সভাপতি বরিশাল মেট্রোপলিটন পুলিশের পক্ষ থেকে আমন্ত্রিত সবাইকে শুভেচ্ছা জানিয়ে হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ বাঙালি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও তার পরিবারবর্গসহ দেশ মাতৃকার জন্য যারা নিজের জীবন আত্মাহুতি দিয়েছেন সে সকল শহীদদের গভীর শ্রদ্ধা ভরে স্মরণ করেন।
তিনি বলেন, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও মহান মুক্তিযুদ্ধে যাঁরা শহীদ হয়েছেন এবং সশস্ত্র আন্দোলন করেছেন তাঁরা আমাদের একটা দেশ ও মানচিত্র উপহার দিয়েছেন। মহান মুক্তিযুদ্ধে পুলিশ সদস্যদের অবদান তুলে ধরে তিনি বলেন, পাকবাহিনীর ছোঁড়া প্রথম বুলেটে শহীদ হওয়া ব্যক্তি ছিল একজন পুলিশ সদস্য এবং পাকবাহিনীকে প্রথম আঘাত করা ব্যক্তিও ছিল একজন পুলিশ সদস্য। আমি বাংলাদেশ পুলিশ পরিবারের সদস্য হিসেবে এজন্য পুলিশের পোশাক পরে গর্ববোধ করি।

এ সময় তিনি আরো বলেন, কমিউনিটি পুলিশিং এর অন্যতম প্রধান লক্ষ্য হচ্ছে জনগণকে পুলিশের সাথে সম্পৃক্ত করে সমাজ থেকে অপরাধ কমিয়ে আনা। একই সাথে কমিউনিটি পুলিশিং কার্যক্রমের অংশ হিসেবে শিক্ষার্থীদের পুলিশের সহযোগিতা করার সুযোগ রাখা হয়েছে। কমিউনিটি পুলিশিংয়ের মাধ্যমে এলাকার সকল প্রকার অপরাধ যেমন- মাদক, জুয়া, বাল্যবিবাহ, ইভটিজিং, নারী ও শিশু নির্যাতন সহ জঙ্গীবাদ ও সন্ত্রাস দমনে পুলিশকে সহযোগিতা করা যায়। কমিউনিটি পুলিশিং এর মাধ্যমে সমাজের মানুষের অপরাধ প্রবণতা দূর করে স্মার্ট বাংলাদেশ গড়ে তুলে দেশকে সমৃদ্ধির দিকে এগিয়ে নিতে হবে। বিএমপির সকল সদস্য অপরাধ দমনে তথা সার্বিক আইনশৃঙ্খলা নিয়ন্ত্রণের জন্য বদ্ধ পরিকর এবং তিনি সমাজের সকল পেশার মানুষকে অপরাধের সংবাদ দ্রুত পুলিশের নিকট পৌঁছাতে আহবান জানান।

এর আগে বিএমপি কমিশনার এর নেতৃত্বে সকাল ৯ টায় বঙ্গবন্ধু উদ্যান সংলগ্ন বরিশাল সরকারি মডেল স্কুল এন্ড কলেজ এর সম্মুখে শান্তির প্রতিক পায়রা ও রংবেরঙের বেলুনসহ ফেস্টুন উড়িয়ে “কমিউনিটি পুলিশিং ডে-২০২৩” এর শুভ উদ্বোধন ঘোষণা করা হয় এবং বরিশাল সরকারি মডেল স্কুল এন্ড কলেজ থেকে এক বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রা বের হয়ে জেলা শিল্পকলা একাডেমিতে এসে সমাপ্ত হয়। এসময় স্বেচ্ছায় রক্তদান কর্মসূচির আওতায় পুলিশ সদস্যরা স্বেচ্ছায় রক্তদান করেন।
আলোচনা সভার শেষে কমিউনিটি পুলিশিং ডে-২০২৩ উদযাপন উপলক্ষে শ্রেষ্ঠ সিপিও, সিপিএম দেরকে পুরস্কার ও সম্মাননা স্মারক তুলে দেওয়া হয়।

আলোচনা শেষে আমন্ত্রিত অতিথিরা একটি মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান উপভোগ করেন।

এসময় উপস্থিত ছিলেন, কমান্ডিং অফিসার (অ্যাডিশনাল ডিআইজি)১০ এপিবিএন আবু আহাম্মদ আল মামুন, উপ-পুলিশ কমিশনার (সদরদপ্তর) মোঃ নজরুল হোসেন, পরিচালক শেরে বাংলা মেডিকেল কলেজ ডাঃ এইচ. এম. সাইফুল ইসলাম, উপ-পুলিশ কমিশনার (সিএসবি) মোহাম্মদ জাকির হোসেন মজুমদার পিপিএম, উপ-পুলিশ কমিশনার (ট্রাফিক) এসএম তানভীর আরাফাত, পিপিএম(বার), উপ-পুলিশ কমিশনার (দক্ষিণ) মোঃ আলী আশরাফ ভুঞা বিপিএম-বার, উপ-পুলিশ কমিশনার (ক্রাইম, অপারেশন এন্ড প্রসিকিউশন) খাঁন মুহাম্মদ আবু নাসের, উপ-পুলিশ কমিশনার (উত্তর) বি.এম আশরাফ উল্যাহ তাহের, কমিউনিটি পুলিশিং এর কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি প্রফেসর মোঃ ইমানুল হাকিম, চেয়্যারমান উপজেলা পরিষদ, বরিশাল সদর সাইদুর রহমান রিন্টু, বাবুগঞ্জ উপজেলা পরিষদ বরিশাল ও উপদেষ্টা কমিউনিটি পুলিশিং কেন্দ্রীয় কমিটি কাজী এমদাদুল হক, কমিউনিটি পুলিশিং এর কেন্দ্রীয় কমিটির সাধারণ সম্পাদক এস.এম. জাকির হোসেন, সামাজিক ও সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব ও উপদেষ্টা কমিউনিটি পুলিশিং কেন্দ্রীয় কমিটি মোহাম্মদ হোসেন, প্রাক্তন প্রফেসর বিএম কলেজ, বরিশাল প্রফেসর (অবঃ) শাহ সাজেদা, সাধারণ সম্পাদক, মহিলা পরিষদ পুষ্প চক্রবর্তী সহ বিএমপি’র সকল উর্ধ্বতন কর্মকর্তা বৃন্দ, বিভাগীয় ও জেলা পর্যায়ে বিভিন্ন সরকারি দপ্তরের প্রতিনিধিবৃন্দ, র‍্যাব- ৮ বরিশাল এর প্রতিনিধি, বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের প্রধান ও শিক্ষার্থীবৃন্দ, কমিউনিটি পুলিশিং এর কেন্দ্রীয় ও উপদেষ্টা কমিটির সদস্যবৃন্দ, থানা কমিটি, বিসিসি ওয়ার্ড কমিটি, ইউনিয়ন কমিটি, ইউনিয়ন ওয়ার্ড কমিটি সাধারন সম্পাদক ও সভাপতিবৃন্দ।
এ ছাড়াও উপস্থিত ছিলেন বিভিন্ন ইলেক্ট্রনিক ও প্রিন্ট মিডিয়ার সাংবাদিকবৃন্দ।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *


ফেসবুকে আমরা