শুক্রবার, ২২ জানুয়ারী ২০২১, ১২:০৯ পূর্বাহ্ন
নোটিশ বোর্ড :
দেশের সকল বিভাগের জেলা, উপজেলা, থানা পর্যায়ে প্রতিনিধি আবশ্যক আগ্রহী প্রার্থীগন আমাদের সাথে যোগাযোগ করুন। মোবাইল নম্বরঃ +8801618833566, ইমেইলঃ 71bd24@gmail.com

বরগুনায় মেয়র পদে বাবা ও মেয়ে সহ প্রার্থী ১০ এবং কাউন্সিলর ৪৯

তরিকুল ইসলাম রতন, স্টাফ- রিপোটারঃ / ৩০২ শেয়ার
আপডেটের সময়ঃ শনিবার, ২ জানুয়ারী, ২০২১
বরগুনায় মেয়র পদে বাবা ও মেয়ে সহ প্রার্থী ১০ এবং কাউন্সিলর ৪৯

বরগুনা পৌরসভায় মেয়র পদে বাবা ও মেয়েসহ ১০ জন মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন।
বর্তমান মেয়র শাহাদাত হোসেন ও তার মেয়ে মহাসিনা মিতু স্বতন্ত্র পদে মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন।

এছাড়াও সাধারণ কাউন্সিলর পদে ৩৫ জন ও সংরক্ষিত মহিলা কাউন্সিলর পদে ১৪ জন প্রার্থী মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন।

গত বৃহস্পতিবার (৩১শে ডিসেম্বর) বিকাল চার টার মধ্যে তারা সকলে এই মনোনয়নপত্র দাখিল করেন।

বরগুনার নির্বাচন অফিস সূত্রে জানা যায়, গত বৃহস্পতিবার ১০ জন মেয়র পদে মনোনয়ন দাখিল করেন। এরা হলেন- আওয়ামী লীগের মনোনয়নপ্রাপ্ত এডভোকেট মো. কামরুল আহসান মহারাজ, জাতীয় পার্টির আবদুল জলিল হাওলাদার, ইসলামী শাসনতন্ত্র আন্দোলন বাংলাদেশ মো. জালাল উদ্দিন, স্বতন্ত্র শাহাবুদ্দিন, স্বতন্ত্র মো. জসীম উদ্দিন, স্বতন্ত্র মো. ছিদ্দিকুর রহমান পান্না, বিএনপি মো. আবদুল হালিম, স্বতন্ত্র নিজাম উদ্দিন, এবং বর্তমান মেয়র শাহাদাত হোসেন তিনি গত ২৭ ডিসেম্বর সর্বপ্রথমে স্বতান্তপ্রার্থী হিসেবে মনোনয়নপত্র দাখিল করেন এবং পরে তার মেয়ে মহাসিনা মিতুও মনোনয়নপত্র দাখিল করেন।

আরও পড়ুন- পটুয়াখালীতে এক ইয়াবা ব্যবসায়ীকে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব-৮

এব্যাপারে বরগুনা জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক গোলাম সরোয়ার টুকু বলেন, মেয়র শাহাদাত হোসেন বরগুনা পৌর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক। গত ২০১৫ সালেও মেয়র পদে দলীয় মনোনয়ন না পেয়ে স্বতন্ত্র প্রার্থী হয়ে দলীয় প্রার্থী কামরুল আহসান মহারাজকে টাকার জোরে নির্বাচনের দিন বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি করে দলীয় প্রার্থীকে আহত করে ভোট কেটে মেয়র নির্বাচিত হয়েছেন।

এবারও শাহাদাত হোসেন দলীয় মনোনয়ন বঞ্চিত হয়ে নিজে স্বতন্ত্র, মেয়ে মিতু ও তার সমর্থক নিজাম উদ্দিনকে দিয়ে স্বতন্ত্র মনোনয়ন দাখিল করিয়েছেন।

তিনি আরও বলেন, বর্তমান মেয়র শাহাদাত হোসেন তিনি দলও করবেন, দলের সব সুযোগ-সুবিধাও ভোগ করবেন, নিজের লোকজন নিয়ে লুটপাটও করবেন, আবার নির্বাচন আসলে টাকার জোরে নির্বাচন করবেন। এবার দলের সব নেতাকর্মীরা ঐক্যবদ্ধ হয়েছেন।
আমরা আর ভূল করতে চাই না, এবার শাহাদাত হোসেনের সব ষড়যন্ত্র মোকাবেলা করা হবে।

এবিষয়ে মনোনয়ন বঞ্চিত ও বর্তমান মেয়র শাহাদাত হোসেন তিনি সাংবাদিকদের বলেন, আমাকে যে কোনো সময় মেরে ফেলতে পারে। এ কারণে আমার মেয়েকে দিয়ে মনোনয়ন দাখিল করাতে বাধ্য হয়েছি।

তার কাছে আরও জানতে চাইলে তিনি বলেন,আপনি কেন দলের বিরুদ্ধে মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন- এমন প্রশ্নে তিনি বলেন, জনগণের চোখের পানি মোছার জন্য আবারও স্বতন্ত্র প্রার্থী হয়েছি। দলের সভাপতি শেখ হাসিনার কথা অমান্য করে নির্বাচন করেন কেন- এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, আমি নৌকাকে ভালোবাসি। তারপরও জনগণের কথা চিন্তা করে আমাকে নির্বাচন করতে হচ্ছে।

এ ব্যাপারে আওয়ামী লীগের মনোনীত প্রার্থী এ্যাড.কামরুল আহসান মহারাজ বলেন, গত ২০১৫ সালের বরগুনা পৌর মেয়র নির্বাচনেও আমাকে আওয়ামীলীগ থেকে মনোনয়ন দেয়া হয়েছিলো। কিন্তু কতিপয় আওয়ামীলীগ নামধারী সুবিধাবাদী লোক সাবেক মেয়র শাহাদাত হোসেনের টাকা খেয়ে তাকে ভোট কেটে দিয়ে আমাকে গুলিবিদ্ধ করা হয় এবং হারানো হয়।
তিনি আরও বলেন,আমার জনসমর্থন দেখে তারা ভীত হয়ে আমাকে মেরে ফেলার জন্য গুলি করে। মহান আল্লাহর অশেষ রহমতে আমি এখনও বেঁচে আছি। আমার জীবন যৌবন আমি এই দলের পিছনে ই ব্যায় করেছি।

বরগুনার সাধারণ মানুষ আমার জন্য সব সময় মাঠ পর্যায়ে কাজ করছেন । তবে আমার বিরুদ্ধে এবারও কঠিন ষড়যন্ত্র হচ্ছে।

আমি বরগুনা জেলার সকল গণমাধ্যমকর্মীরাসহ, সাধারণ জনগন ও আয়ামীলীগের নেতা কর্মীদের এসব বিষয়ে সজাগ থাকারও আহবান জানাচ্ছি এবং আপনাদের প্রতি একান্ত সাহযোগিতা কামনা করছি।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো সংবাদ