বরগুনার আমতলীতে জমি দখলে বাধা দেয়ায় সন্ত্রাসী হামলায় মহিলা সহ আহত ৫

৭১বিডি২৪ডটকম | মোঃ মিজানুর রহমান মিজান | বরগুনা:

বরগুনার আমতলী উপজেলার সেকান্দারখালী গ্রামে জিমি ব্রিকস’র সত্ত¡াধীকারী জেলা পরিষদ সদস্য আবুল বাশার নয়ন মৃধা আদালতের নির্দেষ অমান্য করে অন্যের জমি দখল করেছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। জমি দখলে বাধা দেয়ায় নয়ন মৃধার ভারাটে সন্ত্রাসী বাহীনির হামলায় মহিলা সহ পাঁচজন আহত হয়েছে। গুরুতর আহত তিন জনকে বরিশাল শেবাচিম হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। ঘটনা ঘটেছে শুক্রবার বিকেলে। এ ঘটনায় শুক্রবার রাতে হাসানুজ্জামান বাদী হয়ে আমতলী থানায় অভিযোগ দাখিল করেছেন।

জানাগেছে, আমতলী পৌর শহরের নতুন বাজার হাসপাতাল সড়কের ব্যবসায়ী বরগুনা জেলা পরিষদ সদস্য আবুল বাশার নয়ন মৃধা ২০১৪ সনে উপজেলার সেকান্দারখালী গ্রামে জিমি ব্রিকস নামে ইট ভাটা নির্মাণ করেন। নির্মাণের পর থেকেই ইট ভাটার পরিধি বাড়াতে পার্শ্ববর্তী আব্দুল বারেক হাওলাদার ও আব্দুর রাজ্জাক হাওলাদারের ২ একর ৬৩ শতাংশ জমি দখলের চেষ্টা চালায়। এ নিয়ে আব্দুর রাজ্জাক হাওলাদারের পুত্র সাইমুন ইসলাম রোমেন ৬ নভেম্বর ২০১৯ ইং তারিখ বরগুনা অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিষ্ট্রেট (এডিএম) আদালতে মামলা দায়ের করেন। যার মামলা নম্বর- এমপি-১৮৫/১৯। আদালত মামলাটি আমলে নেয়। আদালতের বিজ্ঞ বিচারক মোঃ নুর হোসেন ১৩ নভেম্বর এ মামলার বাদীর অনুকূলে ইট ভাটা ও পার্শ্ববর্তী জমিতে ১৪৪ ও ১৪৫ ধারা জারি করেন। আদালত আমতলী থানাকে শান্তি শৃঙ্খলা বজায় রাখার নির্দেশও প্রদান করেন। কিন্তু অভিযোগ রয়েছে আদালতের আদেশ অমান্য করে জেলা পরিষদ সদস্য জিমি ব্রিকস মালিক আবুল বাশার নয়ন মৃধা ক্ষমতার প্রভাব খাটিয়ে তার ভারাটে সন্ত্রাসী বাহিনি নিয়ে শুক্রবার বিকেলে ইট ভাটা সংলগ্ন নীলগঞ্জ মৌজার এস.এ ২১৩ খতিয়ানের আব্দুল বারেক হাওলাদার ও আব্দুর রাজ্জাক হাওলাদরের জমি দখল করতে জমিতে ইট বিছায় এবং পিলার পোতে। এতে জমির মালিক পক্ষ বাধা দিলে নয়ন মৃধার সন্ত্রাসী বাহিনির হামলায় শাহনাজ (৫৫), মোঃ রাব্বি (৩৫), মোসাঃ কহিনুর বেগম (৪০), মোঃ ফরহাদ (৫২) ও রবিউল (২৮) আহত হয়। সন্ত্রাসীদের হামলায় এলাকায় আতংক ছড়িয়ে পরে। স্বজনরা আহতদের উদ্ধার করে কলাপাড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক আহত শাহানাজ, রাব্বি ও কহিনুরের অবস্থার অবনতি দেখে বরিশাল শেবাচিম হাসপাতালে উন্নত চিকিৎসার জন্য প্রেরণ করেন। বাকি ২ জনকে ওই হাসপাতালে চিকিৎসা দেয়া হয়েছে। এ ঘটনায় হাসানুজ্জামান বাদী হয়ে আবুল বাশার নয়ন মৃধাকে প্রধান আসামী করে ১১ জনের নামে আমতলী থানায় শুক্রবার রাতে অভিযোগ দাখিল করেছেন।

কলাপাড়া উপজেলার স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের মেডিকেল অফিসার ডাঃ আশ্রাফুল ইসলাম বলেন আহত তিন জনকে বরিশাল শের-ই বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে। অপর আহতদের চিকিৎসা দেয়া হয়েছে।

জিমি ব্রিকস’র মালিক আবুল বাশার নয়ন মৃধা বলেন আমার ইটভাটার শ্রমিকরা কাজ করতেছিল এ সময় সন্ত্রাসীরা হামলা চালিয়ে তাদের বেদরক মারধর করেছে। আমি কারো জমি দখল করিনি।
জমির মালিক সাইমুন ইসলাম রোমেন বলেন, আমাদের জমি জোড় পূর্বক নয়ন মৃধা তার ভারাটে সন্ত্রাসী বাহিনি নিয়ে দখল করতে গেলে আমরা বাধা দেই। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে নয়ন মৃধার সন্ত্রাসী বাহিনি আমাদের লোকজনকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে গুরুতর জখম করেছে।

অভিযোগ দাখিলকারী মোঃ হাসানুজ্জামান বলেন, আমাদের ভোগদখলীয় জমি নয়ন মৃধা জোড় করে দখল করতে গেলে আমরা বাধা দিলে তার সন্ত্রাসী বাহিনি আমাদের উপর হামলা করেন। এ ঘটনায় আমি আমতলী থানায় অভিযোগ দাখিল করেছি। পুলিশ আমার অভিযোগখানা এজাহার হিসেবে গণ্য করেনি। পুলিশ আমাদের প্রতিপক্ষের অভিযোগ এজাহার হিসেবে গণ্য করেছেন। আমরা ন্যায় বিচার পাবো কিনা এ নিয়ে সংশয় রয়েছে।
আমতলী থানার ওসি আবুল বাশার আদালতের আদেশনামা প্রাপ্তির কথা স্বীকার করে বলেন শান্তি শৃঙ্খলা রক্ষায় আমরা বদ্ধ পরিকর।

Recommended For You

About the Author: HumayrA

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *