প্রেমিক উদাও রাঙ্গাবালীতে গত ৬দিন ধরে প্রেমিকের বাড়ীতে প্রেমিকা

৭১বিডি২৪.কম | হারুন অর রশিদ ;


রাঙ্গাবালী


গলাচিপা(পটুয়াখালী): গত ৬দিন ধরে প্রেমিকের বাড়ীতে অবস্থান করছে প্রেমিক রিনা বেগম(২৫)। এ নিয়ে এলাকায় খুব চাঞ্চল্যকর সৃষ্টি হয়েছে। ঘটনাটি ঘটেছে রাঙ্গাবালী উপজেলার চরমোনতাজ ইউনিয়নের ৬নং ওয়ার্ডের আশ্রাব সিকদারের বাড়িতে গত সোমবার। এ ঘটনায় রিনা বেগমের পূর্বের স্বামী চরমোনতাজের পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রে অভিযোগ করেছে।

সূত্রে জানা যায়, রাঙ্গাবালী উপজেলার চরমন্ডল বাজারের হালিম হাওলাদার দ্বিতীয় পুত্র আ: খালেক হাওলাদার(৩০) ও গলাচিপা উপজেলার হরিদেবপুর গ্রামের মহব্বত হাওলাদারের তৃতীয় মেয়ে রিনা বেগমের সাথে ২০০৭সালে ১লাখ টাকা কাবিনে বিবাহ হয়। চরমন্ডল বাজারে তার কাটা কাপড় ও কসমেটিকস এর দোকান ছিল । স্বামী স্ত্রী দু জনেই সমান তালে দোকান করত। ৯ বছর ধরে তাদের দাম্পত্য জীবন ভালই কাটছিল।ওই বাজারে আ: খালেক হাওলাদার বিপরীত পাশে মো: মামুন সিকদারের(২১) মুদি দোকান ছিল। গত দুই বছর ধরে রিনা বেগমের সাথে মো: মামুন সিকদারের প্রেমের সম্পর্ক গড়ে উঠে। বিষয়টি নিয়ে এক পর্যায় বাজারের লোকজন জেনে ফেলে এবং আ: খালেক হাওলাদার রিনা বেগমকে চাপ সৃষ্টি করে। গত ১২ডিসেম্বর সবার অজান্তে আ: খালেক হাওলাদারে ঘর ছেড়ে সন্ধ্যা ৫টায় মো: মামুন সিকদার নিজে তার প্রেমিকা রিনা বেগমকে নিয়ে তার নিজ বাড়ী ৬নং ওয়ার্ডের পিতা আশ্রাব সিকদারের বাড়িতে রেখে আসে । মো: মামুন সিকদার বর্তমানে এলাকার চাপের মুখে আছে। স্থানীয় আব্বাস হাং, সবুজ সিকদার , কামাল প্যাদা ,জুবায়ের , গিয়াস হাওলাদার ,নুরুদ্দিন হাংসহ আরো অনেকে জানান, তিনজন ইউপি সদস্য ছালাম প্যাদা, হালিম খা ও মনির হাওলাদার তারা পরিষদে নেয়ার চেষ্টা করছিল রিনা বেগম ন্যায় বিচার পাবে না বলে তিনি যাননি। এ দিকে রিনা বেগম জানান, এ বাড়িতে আসছি এবং থাকব, মরন হলে এ বাড়িতে বসে মরব। এ ব্যাপারে চরমোনতাজ ইউনিয়নের চেয়ারম্যান হানিফ মিয়া জানান, মেয়ে না আশায় সমঝোতার করতে পারিনি। এ ব্যাপারে চরমোনতাজের পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের মো: নাসির উদ্দিন জানান, মেয়েটি ছেলের বাবার আশ্রমে দিয়েছি। মেয়েটি মামলা করতে রাজি হলে মামলা নেয়া হবে।

Recommended For You

About the Author: HumayrA

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *