সোমবার, ২৩ মে ২০২২, ০৬:১৫ অপরাহ্ন

প্রধানমন্ত্রীর বিরুদ্ধে আন্তর্জাতিক চক্রান্ত রুখে দেয়ার আহ্বান জানিয়ে দিনাজপুরে সংবাদ সম্মেলন

রফিকুল ইসলাম ফুলাল. দিনাজপুর প্রতিনিধি; / ১৫৩ ভোট :
প্রকাশ : বুধবার, ১১ মে, ২০২২
সংবাদ সম্মেলন

জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের কন্যা মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা সরকারকে উৎখাতের আন্তর্জাতিক চক্রান্ত শুরু করেছে দেশের মধ্যে বসবাস করা স্বাধীনতা ও সার্বভৌমত্ব বিরোধী অপশক্তি। ১১ মে বৃহস্পতিবার সকালে দিনাজপুর প্রেসক্লাব মিলনায়তনে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে উপরোক্ত অভিযোগ করে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন নীলফামারী সদরের বেড়া ভাঙ্গা গ্রামের সিরাজ উদ দ্দৌলা চৌধুরী ।

লিখিত বক্তব্যে তিনি বলেন, জাতির জনক বঙ্গবন্ধু কন্যা রাষ্ট্রনায়ক শেখ হাসিনা ও তার সরকারকে উৎখাতের জন্য দেশী ও বিদেশী স্বাধীনতা বিরোধী শক্তির এজেন্ট গুলো আন্তর্জাতিক ভাবে আমাদের দেশে পলাশীর যুদ্ধ সৃষ্টির লক্ষ্যে বিভিন্ন কায়দায় চক্রান্ত শুরু করেছে। এই গভীর ষড়যন্ত্র ও চক্রান্ত প্রতিহত করতে হলে স্বাধীনতার পক্ষের শক্তিগুলোকে সম্মিলিতভাবে বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলা রক্ষায় সকল পর্যায়ের নেতা-কর্মী ও সমর্থকদের দ্বিধা দ্বন্দ্ব এবং ভেদাভেদ ভুলে কাজ করতে হবে।

আরও পড়ুন- ’গলাচিপা রামনাবাদ নদীর দখল-দূষণ রোধ ও সংরক্ষণে করণীয়’ শীর্ষক আলোচনা সভা

তিনি বলেন, নেত্রীর জন্যে ১/১১তে রাজবন্দী থাকার পরেও একটি মহল দীর্ঘদিন যাবত আমার প্রতি অন্যায় জুলুম নির্যাতন করেছে তারপরেও বঙ্গবন্ধুর আদর্শের সৈনিক হিসেবে এবং নেত্রীর পাশে থাকার স্ব ইচ্ছায় প্রতিটি দুর্দিনে মোহনলালের মত দলের পাশে থাকার চেষ্টা করেছি।

লিখিত বক্তব্যে তিনি আরো বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী আপনাকে বারবার বলেছি, শেখ পরিবারের ক্ষমতা গ্রহণের সময়টি শুভ হলেও বিদায় বেলা অত্যন্ত বেদনাদায়ক হয়,তাই সব ধরনের দুর্যোগ মোকাবেলায় জননেত্রীর পাশে থেকে দলের জন্য কাজ করার সুযোগ চাই।

লিখিত বক্তব্য তিনি উল্লেখ করেন, ১৯৭৫ সালের ১৫ ই আগস্ট বঙ্গবন্ধু হত্যাকাণ্ডের পূর্বেই সোভিয়েত ইউনিয়নের গোয়েন্দা সংস্থা KGB এবং ভারতীয় গোয়েন্দা সংস্থা RAW জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে ধানমন্ডির ৩২ নম্বর বাড়িতে না থাকার জন্য বারবার পরামর্শ দিয়েছিলেন এবং গনভবনে থাকার জন্য বিশেষ ভাবে অনুরোধ করেছিলেন । কিন্তু তৎকালীন এদেশীয় চক্রান্তকারীরা তাদের সে অনুরোধ রাখেনি ফলে আমরা হারিয়েছি বিশ্বের অবিসংবাদি নেতা জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে। তৎকালীন সময়ে যদি গোয়েন্দা সংস্থা KGB এবং RAW এর অনুরোধ রাখা হত তা হলে So What বলারা ইতিহাসের জঘন্যতম অপরাধ সংগঠনের সুযোগ পেত না। তখন আমাদের বাংলা মায়ের সাত রাজার ধনকে হারাতে হতো না। যারা স্বাধীনতা কে ভালোবাসে তারা এদেশকে ভালোবাসে,মুলত তারাই জননেত্রী শেখ হাসিনাকে ভালোবাসে।

লিখিত বক্তব্যে তিনি আরো বলেন, বাংলার আপামর জনগণের জন্য সুযোগ্য ও সফল প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা সব সেক্টরই কঠোর হস্তে উন্নয়ন ও আর্ত মানবতার পাশে দাঁড়ালেও এদেশের স্বাধীনতার বিপক্ষ শক্তি আন্তর্জাতিকভাবে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর বিরুদ্ধে দুর্নাম রোটিয়ে সরকার উৎখাতের ষড়যন্ত্র ও চক্রান্ত করছে।

তিনি আহ্বান জানান, আসুন আমরা যারা দেশকে ভালোবাসি, স্বাধীনতাকে ভালবাসি, শেখ পরিবারকে ভালোবাসি এবং মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনাকে ভালোবাসি সবাই মিলে বেইমানদের এই আন্তর্জাতিক চক্রান্ত রুখে দিতে ঐক্যবদ্ধভাবে জননেত্রী শেখ হাসিনার সরকারকে আরেকবার ক্ষমতায় বসিয়ে বাংলা মায়ের মুখে হাসি ফুটিয়ে তুলি, এদেশের মানুষের কল্যাণ ও উন্নয়নের জননেত্রী শেখ হাসিনার বিকল্প নেই।

আরও পড়ুন- বা‌ড়ির ছাদে গাঁজা চাষ! স্বামী স্ত্রী আটক


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.

আরো সংবাদ...