প্রতিবেশীদের আঘাতে স্বামী ও স্ত্রী হাসপাতালের ভর্তি।

৭১বিডি২৪ডটকম । সঞ্জিব দাস,


গলাচিপা


গলাচিপা(পটুয়াখালী): তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে গলাচিপায় প্রতিবেশিকে কাঠ দিয়ে পিটিয়ে গুরুতর আহত করেছে মোসলেম গাজী(৩৫), রিনা বেগম (৩০) ও আমেনা বেগমকে। দুই জনকে গলাচিপা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। গত ৯দিন ধরে স্বামী ও স্ত্রী উভয় হাসপাতালের বেডে কাতরাচ্ছে। এমনই একটি ঘটনা ঘটেছে গলাচিপা উপজেলার গলাচিপা সদর ইউনিয়নের পক্ষিয়া গ্রামে গত ২১মে রাতে।

সূত্র জানায়, উপজেলার পক্ষিয়া গ্রামে বেড়ীবাধের উপর মোসলেম গাজীর পরিবার ও তারই প্রতিবেশী জবেদ গাজীর পবিবার বাস করে। মোসলেম গাজীর মেয়ে আমেনা বেগম( ১৩) জবেদ গাজীর পুত্র ইলিয়াস গাজীর একটি মেমোরি কার্ড নিয়ে গান লোড করে ফেরত দিতে গেলে ইলিয়াস গাজী মেমোরিটি নষ্ট হয়েছে বলে অভিযোগ করেন। আমেনা বেগমের মা রিনা বেগম তার নিজের মেমোরি কার্ডটি ফেরত দিয়েও শেষ রক্ষ হলো না। উভয়ের কথা কাটাকাটির এক পর্যায় ইলিয়াস গাজীর(৩০) নেতৃত্বে জবেদ গাজী(৫৫), মিলন গাজী (২৬)ও আরিফ গাজী(২১) আমেনা বেগমকে,মোসলেম গাজীকে ও রিনা বেগমকে ব্যাপক ভাবে মারধর করে। হাসপাতালের বেডে বসে রিনা বেগম জানান,২১ তারিখ রাত ৯টায় তারা দলবদ্ধ হয়ে এলোপাথারী প্রথমে আমার মেয়ে আমেনা বেগমকে কয়েকটি চর ধাপ্পর মারে পরে স্বামী মোসলেম গাজীােক মারধর করলে ডাকচিৎকার দিলে তাকেও শরীরের বিভিন্ন স্থানে আঘাত করলে রিনা জ্ঞান হারিয়ে ফেলে। তাদের ডাক চিৎকারে পাশের লোকজন এগিয়ে আসে। ওই রতেই এলাকার লোকজন স্বামী ও স্ত্রী দুইজনকে গলাচিপা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে।কর্তব্যরত চিকিৎসক তহমিনা ভূইয়া জানান, দুই জনেই চিকিৎসাধীন আছে। তবে রিনা বেগমের মাথায় আঘাতের দাগ আছে।

এ ব্যাপারে গলাচিপা ইউনিয়নের ৬নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য মো: দেলোয়ার হোসেন জানান, ঘটনাটি সত্য, তাদের ব্যাপক ভাবে নির্যাতন করা হয়েছে। যারা ঘটনাটি ঘটিয়েছে তারা এলাকার পরিবেশ নষ্ট করছে গাঁজা খায় ও অন্যায় ভাবে লোকজন মারধর করে। গলাচিপা সদর ইউনিয়নের চেয়রম্যান মো: হাবিবুর রহমান জানান, তারা এলাকার খারাপ লোক এবং তিনি ঘটনার সত্যতা স্বীকার করেন। গলাচিপা থানার ওসি মো: জাহিদ হোসেন জানান, অভিযোগ দেয়া হলে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

Recommended For You

About the Author: HumayrA

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *