ধারাবাহিকতায় এ বছরেও বরিশাল শিক্ষা বোর্ডে কমছে পাসের হার

 

:: ৭১বিডি২৪ডটকম :: ব্যুরো প্রধান ::


বরিশাল বোর্ড


:: বরিশাল :: বরিশাল মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ডের অধীনে বছরে বছরে কমছে পাশের হার। ২০১৫ সাল থেকে শুরু হওয়া এ ধারা অব্যাহত থেকে এবারে বরিশাল বোর্ডে মোট পাশের হার গিয়ে দাড়িয়েছে ৭৭.১১ ভাগে, যা গত বছর ছিলো ৭৭.২৪ ভাগ। বোর্ডের বিভিন্ন সময়ে প্রকাশিত ফলাফলের পরিসংখ্যান অনুযায়ী, ২০১৪ সালে পাশের হার ছিলো ৯০.৬৬ ভাগ এরপরে ২০১৫ সালে ৬.২৯ ভাগ কমে পাশের হার দাড়ায় ৮৪.৩৭ ভাগে। আর ২০১৫ সালের চেয়ে ৪.৯৬ ভাগ কমে ২০১৬ সালে দাড়িয়েছে ৭৯ দশমিক ৪১ ভাগে। যা আরো ২.১৭ ভাগ কমে এ বছর ২০১৭ সালে দাড়িয়েছে ৭৭ দশমিক ২৪। সর্বোশেষ ২০১৭ সালের থেকে দশমিক ১৩ ভাগ কমে ২০১৮ সালে দাড়িয়েছে ৭৭ দশমিক ১১ ভাগে। এদিকে ২০১৭ সালের থেকে এ বছরে ১ হাজার ১৭৪ টি বেড়ে জিপিএ-৫ পেয়েছে ৩ হাজার ৪৬২ জন শিক্ষার্থী। তবে ২০১৪ সালে জিপিএ-৫ এর সংখ্যা ছিলো ৪ হাজার ৭৬২ টি, সেখানে পরের বছর ২০১৫ সালে ১ হাজার ৫৯১ টি কমে জিপিএ-৫ দাড়ায় ৩ হাজার ১ শত ৭১ টিতে। এরপর ২০১৬ সালে ২০১৫ সালের থেকে ৫৮ টি কমে জিপিএ-৫ এর সংখ্যা দাড়িয়েছে ৩ হাজার ১১৩। আর ২০১৭ সালে এসে আরো ৮২৫ টি কমে গিয়ে জিপিএ ৫ এর সংখ্যা দাড়িয়েছিলো ২ হাজার ২৮৮। এ বছরে সর্বোচ্চ জিপিএ-৫ পেয়েছে বিজ্ঞান বিভাগে ৩ হাজার ২২৪ জন, আর মানবিক বিভাগে ১০৬ জন ও বানিজ্য বিভাগে পেয়েছে ১২৮ জন। তবে বিগত সময়ের চেয়ে এ বছরে এসএসসিতে পরীক্ষার্থীর সংখ্যা ছিলো বেশি। এবছর পরীক্ষায় অংশ নিয়েছিলো ১ লাখ ৩ হাজার ১২৪ জন। যারমধ্যে ছাত্র ৫১হাজার ৯১২ জন এবং ছাত্রী ছিলো ৫১ হাজার ২১২ জন।

অপরদিকে গতবছর ৯ হাজার ৪৪৮ জনর পরীক্ষার্থী কম অংশগ্রহন করে। যারমধ্যে ছাত্র ৪৭ হাজার ৩৬১ জন এবং ছাত্রী ছিলো ৪৬ হাজার ৩১৫ জন। এদের মধ্যে পাস করেছিলো ৭২ হাজার ৩৫৬ জন। এছাড়াও এ বছর গত বছরের চেয়ে বহিস্কৃত পরীক্ষার্থীর সংখ্যা ছিলো বেশি। এবছর ১০৩ জন পরীক্ষার্থী বহিষ্কার হয়েছেন, যা গত বছর ছিলো ৩৯ জন। এ বছর মোট পরীক্ষার্থীর মধ্যে বিজ্ঞান বিভাগে ২৭ হাজার ৪১ জন পরীক্ষার্থী অংশগ্রহন করে পাশ করেছেন ২৪ হাজার ২৫৫ জন। মানবিক বিভাগে ৪৭ হাজার ৩৭৪ পরীক্ষার্থী অংশগ্রহন করে পাশ করেছেন ৩২ হাজার ৫৪১ জন। বানিজ্য বিভাগে ২৮ হাজার ৭০৯ জন পরীক্ষার্থী অংশগ্রহন করে পাশ করেছেন ২২ হাজার ৭২৪ জন।

এ বিষয়ে বোর্ডের পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক প্রফেসর মোঃ আনোয়ারুল আজিম জানান, এবছর গনিতে ও ইংরেজীেিত পরীক্ষার্থীরা তুলনামূলক খারাপ করেছে। তবে পাশের হার কমলেও প্রশ্নপত্র ফাঁসের ঘটনার কোন প্রভাব এর ওপর পড়েনি। কারণ পাশের সংখ্যা কমলেও ফলাফলে গুনগতমান ভালো হওয়ার বিষয়টি দেখা গেছে। এ বছর বিগত বছরের থেকে জিপিএ-৫ এর সংখ্যা বেড়েছে অনেকটাই। শিক্ষকের অপ্রত্যুল হওয়া ও উত্তরপত্র মূল্যায়নে পরিবর্তনের কারনে ফলাফলে কিছুটা পরিবর্তন ঘটতে পারে বলে জানান তিনি।

Recommended For You

About the Author: HumayrA

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *