ঢাকা-চট্টগ্রাম রুটে আসছে বিরতিহীন নতুন ট্রেন

৭১বিডি২৪, ডেস্ক রিপোর্ট:

ঢাকা-চট্টগ্রাম রুটে দ্রুতগামী নতুন একটি বিরতিহীন ট্রেন চালু হতে যাচ্ছে। চলতি বছরের মাঝামাঝি সময়ে এই নতুন আন্তঃনগর ট্রেন রেলওয়ের বহরে যুক্ত হবে। রেলওয়ে সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে। ঢাকা-চট্টগ্রাম রেললাইনে ডাবল লাইনের সুবিধা কাজে লাগিয়ে নতুন ও আধুনিক এই ট্রেন সেবা চালু করার উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। রেলওয়ের কর্মকর্তারা মনে করছেন, নতুন কোচ ও ইঞ্জিনের অভাবে ট্রেন চলাচল স্বাভাবিক রাখতে প্রায়ই হিমশিম খেতে হচ্ছে। নতুন আসা এসব বগি দিয়ে নতুন ট্রেন চালানোসহ পুরনো বগি পরিবর্তন করা হলে অতিরিক্ত যাত্রী যেমন বহন সম্ভব হবে, তেমনি যাত্রীসেবার সঙ্গে বাড়বে রেলের আয়ও।

রেলওয়ে সূত্র জানায়, চলতি বছরের বিভিন্ন সময়ে ভারত ও ইন্দোনেশিয়া থেকে মোট ২৭০টি যাত্রীবাহী নতুন কোচ রেলওয়ের বহরে যুক্ত হবে। ফেব্রুয়ারির মাঝামাঝি থেকে এসব বগি আসা শুরু হবে। এ বছরের মধ্যেই দর্শনা সীমান্ত দিয়ে ভারত থেকে ১২০টি এবং ইন্দোনেশিয়া থেকে চট্টগ্রাম সমুদ্রবন্দর হয়ে ১৫০টি কোচ বাংলাদেশে আসবে। নতুন এসব কোচকে বাংলাদেশের জাতীয় পতাকার লাল-সবুজ রঙে দেখা যাবে। এসব কোচ থেকেই ঢাকা-চট্টগ্রাম রুটের জন্য পৃথক একটি ট্রেন করবে রেলওয়ে কর্তৃপক্ষ।

বাংলাদেশ রেলওয়ের মহাপরিচালক (ডিজি) মো. আমজাদ হোসেন জানান, চলতি বছরের বিভিন্ন সময়ে ২৭০টি কোচ আসবে দেশে। এসব কোচ আমরা বিভিন্ন আন্তঃনগর ট্রেনে যুক্ত করব। এরপর নতুন কোচ দিয়ে ঢাকা-চট্টগ্রাম রুটে একটি আন্তঃনগর ট্রেন নামানোর প্রাথমিক পরিকল্পনা আছে। সব বগি পেলে বিভিন্ন রুটে আরও নতুন ট্রেনও নামানো যাবে। বিভিন্ন ট্রেনেই বগির সমস্যা। অনেক ট্রেনে পুরনো বগি। এগুলোর জায়গায় আন্তঃনগর ট্রেনগুলোতে পুরনো বগির পরিবর্তে আমরা নতুন বগি যোগ করব। ভারত এবং ইন্দোনেশিয়া থেকে যেসব বগি আসবে সেগুলো অগ্রাধিকার ভিত্তিতে বিভিন্ন ট্রেনে দেওয়ার পর নতুন ট্রেনে বগি যুক্ত হবে।

তিনি আরও জানান, চলতি বছরের মাঝামাঝি সময়ে ঢাকা-চট্টগ্রাম রুটে নতুন আধুনিক ও দ্রুতগামী একটি বিরতিহীন ট্রেন চালু করার উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। ঢাকা-চট্টগ্রাম রুটের নতুন ট্রেনটি হবে বিলাসবহুল ও সম্পূর্ণ শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত। এই ট্রেনের আসনব্যবস্থা, দরজা, জানালা ও টয়লেটগুলো হবে আধুনিক এবং কিছুটা চওড়া। যাত্রীদের সুবিধার্থে জানালার গ্লাসগুলোও হবে অত্যাধুনিক।

রেলওয়ে সূত্রে পাওয়া তথ্যে জানা গেছে, ১৯৭২ সালে ১ হাজার ২৪৭টি যাত্রীবাহী কোচ ছিল রেলওয়েতে। বর্তমানে রয়েছে ১ হাজার ৪৯০টি- যার মধ্যে আন্তঃনগর ট্রেনের ৭০৫টি। এ হিসাবে ৪৪ বছরে কোচ বেড়েছে মাত্র ২৪৩টি। একই সময়ে যাত্রী পরিবহন প্রায় সাতগুণ উন্নীত হলেও এর সঙ্গে সঙ্গতি রেখে বাড়ানো হয়নি কোচ কিংবা ইঞ্জিন।

Recommended For You

About the Author: HumayrA

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *