চরমোন্তাজ এ ছাওার মাধ্যমিক বিদ্যালয় এস এস সি পরীক্ষার্থীদের বিদায় অনুষ্ঠান সম্পন্ন

৭১বিডি২৪ডটকম  | মোঃ আইয়ুব খান;


চরমোন্তাজ এ ছাওার মাধ্যমিক বিদ্যালয় এস এস সি পরীক্ষার্থীদের বিদায় অনুষ্ঠান সম্পন্ন


রাঙ্গাবালী(পটুয়াখালী): পটুয়াখালী জেলা রাঙ্গাবালী উপজেলার চরমোন্তাজ এ ছাওার মাধ্যমিক বিদ্যালয় এর এস এস সি পরীক্ষার্থীদের শতভাগ সাফল্য কামনায় দোয়া মাহফিল ও বিদায় অনুষ্ঠান আজ সাল ১০ টায় এ কে শামসুদ্দিন আবুমিয়ার সভাপতিত্বে হাইস্কুল মাঠে অনুষ্ঠিত হয়। পবিত্র কোরআন তেলাওয়াতের মাধ্যমে অনুষ্ঠান শুরু হয়। শিক্ষার্থীদের ভালো ফলাফলের লক্ষ্যে বিভিন্ন পরামর্শ দিয়ে বক্তব্য রাখেন বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মোঃ রুহুল আমিন,বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক মোঃ ইকবল হোসাইন, মোঃ ফরিদ হোসেন, মো:মনিরুজামান রিজিওনাল কো-অর্ডইনেটর মোঃ শফিকুল ইসলাম মাসুদ, চরমোন্তাজ সদর বিড অফিসার মোঃ ছালাম হোসেন,সমাজ সেবক এম আজাদ খান সাখী,এ্যাকটিভ সিটিেজন্স রাংঙ্গাবালী ইউনিট কো-অর্ডইনেটর সাংবাদিক মো:আইয়ুব খান, শিক্ষার্থীদের পক্ষ থেকে বক্তব্য রাখেন- পরীক্ষার্থী মো:জাহিদ হোসেন। বক্তারা তাঁদের বক্তব্যে বলেন, ‘পিতা-মাতা ও শিক্ষক-শিক্ষিকার স্বপ্ন পূরণ করতে হলে, প্রতিষ্ঠানের সুনাম ও সম্মানকে অক্ষুণ্ন রাখতে হলে, এমনকি, নিজের জীবনকে যথাযোগ্য মর্যাদায় প্রতিষ্ঠিত করতে হলে পরীক্ষায় সফলতার বিকল্প নেই। তোমরা চাইলে সাফল্যের পথ বেয়ে অনেক দূর এগিয়ে যেতে পারো।’ পরীক্ষার্থীদের উদ্দেশ্যে সভাপতির বক্তব্যে পটুয়াখালী জেলা পরিষদের সদস্য রাঙ্গাবালী উপজেলা আয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি ও চরমোন্তাজ ইউনিয়ন আয়ামী লীগের সভাপতি একে শামসুদ্দিন আবুমিয়া বলেন, ‘‘বিদায় প্রত্যেকটা মানুষের জন্য বেদনাদায়ক।তোমাদের আজকের এ বিদায় দুঃখের হলেও পরম আনন্দের, কেননা, আজকের বিদায়ের মাধ্যমে তোমরা একটা বৃহত্তর জগতে পদার্পণ করতে যাচ্ছ। তোমরা অত্র প্রতিষ্ঠানের শিক্ষা কার্যক্রম শেষ করলেও আমাদের সহযোগিতা ও দোয়া সব সময় তোমাদের সাথে থাকবে। মনে রাখবে, শুধু সার্টিফিকেট অর্জনের জন্য শিক্ষা বাস্তব জীবনে কোন প্রভাব ফেলতে পারে না। একমাত্র প্রকৃত শিক্ষাই পারে সমাজ, দেশ ও জাতির মান উন্নত করতে।’ তিনি আশা করেন, অন্যান্য বারের চেয়ে এবার শিক্ষার্থীরা আরো ভালো ফলাফল অর্জন করবে, কারণ, এবারে বিগত সময়ের বিভিন্ন ঘাটতি পূরণ করে পরীক্ষার্থীদেরকে আরো ভালোভাবে গড়ে তোলা হয়েছে। সভায় পরীক্ষার্থীদের মঙ্গল কামনা করে দোয়া ও মোনাজাত পরিচালনা করেন মাওলানা ফোরকান হোসাইন। মোনাজাতের পর প্রতিষ্ঠান প্রধানের হাতে প্রতিষ্ঠানের জন্য গিফট তুলে দেয় দ্বাদশ শ্রেণির শিক্ষার্থীবৃন্দ। অনুষ্ঠান শেষে বিদায়ী শিক্ষার্থীদেরকে উপহার সামগ্রী প্রদান করা হয়। সমগ্র অনুষ্ঠানটি সঞ্চালনা করেন শিক্ষিকা মোসা:হামিদা বেগম। অনুষ্ঠানে প্রতিষ্ঠানের সকল শিক্ষক-শিক্ষিকা এবং একাদশ ও দ্বাদশ শ্রেণির শিক্ষার্থীরা উপস্থিত ছিলেন।

Recommended For You

About the Author: HumayrA

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *