গুলশানে হামলা: পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে, নিহত ৫, নারী-শিশুসহ উদ্ধার ১২

ঢাকা:

রাজধানীর গুলশানে হলি আর্টিজান রেস্টুরেন্ট নিয়ন্ত্রণে নিয়েছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী। উদ্ধার অভিযানের সংশ্লিষ্টরা জানান, এখন পর্যন্ত পাঁচ জনের মৃতদেহ এবং নারী ও শিশুসহ ১২ জনকে জীবিত উদ্ধার করা হয়েছে। তবে কমান্ড অভিযান শেষ হয়েছে বলে জানিয়েছেন কূটনৈতিক জোনের উপ-কমিশনার জসিম উদ্দিন। তিনি আরও জানান, হামলাকারী কয়েকজনকেও জীবিত উদ্ধার করা সম্ভব হয়েছে।

অভিযানের সময় সকাল ৭টা ৪০ মিনিট থেকে ৮টা ২০ মিনিটে পর্যন্ত থেমে থেমে গোলাগুলির ও বিস্ফোরণের শব্দ শোনা যায়। পরিস্থিতি শান্ত হয়ে যাওয়ার পর সকাল ৯টার দিকে আবারও দুটি গ্রেনেড বিস্ফোরণের শব্দ শোনা যায়।

এদিকে কূটনৈতিক জোনের উপ-কমিশনার জসিম উদ্দিন জানিয়েছেন, এখন পর্যন্ত ১২ জনকে উদ্ধার করে হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। এর মধ্যে এক ভারতীয় নাগরিক ও এক জাপানি নারী রয়েছেন।

সকালে অভিযান শুরুর পর ৭টা ৫৫ মিনিট পর্যন্ত একটানা গুলি ও সাউন্ড গ্রেনেডের শব্দ শোনা যায়। তিন মিনিট পর ৭টা ৫৮ ও ৮টা ৯মিনিটে গুলির শব্দ শোনা যায়। ৮টা ১২ মিনিটে আবারও বিকট শব্দ শোনা যায়। গোলাগুলি চলে ৮টা ২০ পর্যন্ত। এরপর থেকেই শান্ত ছিল ঘটনাস্থল। পরে ঘটনাস্থলে আগুন নেভাতে ফায়রা সার্ভিসকে পানি দিতে দেখা যায়।

উল্লেখ্য শুক্রবার রাত সাড়ে ৯টার দিকে হলি আর্টিজানে হামলা চালায় জঙ্গিরা। গুলশান-২ এর ৭৯ নম্বর সড়কের এই রেস্তোরাঁয় সন্ত্রাসীদের সঙ্গে পুলিশের গোলাগুলির ঘটনায় ডিবির সহকারী (এসি) রবিউল ইসলাম ও বনানী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সালাহউদ্দিন নিহত হয়েছেন। এছাড়া পুলিশসহ অর্ধশত লোক আহত হয়েছেন।

ওই রেস্টুরেন্টের ভেতরে ২০ জনের বেশি বিদেশি নাগরিক জিম্মি হয়ে আছেন বলে জানা গেছে। একই ভবনে ‘ও কিচেন’ নামে আরেকটি রেস্তোরাঁর আরও পাঁচজনকে সন্ত্রাসীরা জিম্মি করে রেখেছে বলেও জানিয়েছেন পুলিশের মহাপরিদর্শক (আইজিপি)।

এই হামলার ঘটনায় আইএস দায় স্বীকার করেছে বলে জানিয়েছে সাইট ইন্টিলিজেন্স। ওয়েবসাইটটি থেকে জানানো হয়,‘আইএস দাবি করেছে, গুলশানে ২০ জনের বেশি বিদেশি নাগরিককে হত্যা করা হয়েছে। তবে পুলিশের পক্ষ থেকে এ বিষয়ে কিছুই বলা হয়নি। পুলিশ শুধু দুই কর্মকর্তার নিহত হওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।’

Recommended For You

About the Author: HumayrA

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *