বুধবার, ১৯ মে ২০২১, ০১:৩৪ পূর্বাহ্ন
নোটিশ বোর্ড :
দেশের সকল বিভাগের জেলা, উপজেলা, থানা পর্যায়ে প্রতিনিধি আবশ্যক আগ্রহী প্রার্থীগন আমাদের সাথে যোগাযোগ করুন। মোবাইল নম্বরঃ +8801618833566, ইমেইলঃ 71bd24@gmail.com

গলাচিপায় মোবাইল চুরির অপরাধে গাছে বেঁধে নির্যাতন গ্রেফতার-১

জসিম উদ্দিন, গলাচিপা / ৮৮ শেয়ার
আপডেটের সময়ঃ রবিবার, ১১ এপ্রিল, ২০২১

পটুয়াখালীর গলাচিপায় মোবাইল চুরির অভিযোগে মধ্যযুগীয় কায়দায় ১২ বছরের শিশুকে গরুর রশি দিয়ে গাছে বেঁধে কাচি দিয়ে মাথার চুল কেটে দিয়েছে এবং বাবাকে নির্যাতন করেছে দুর্বৃত্তরা। এর সাথে জড়িত মো. সোহেল মৃধা (৩৮) নামের ১ জনকে গ্রেফতার করেছে গলাচিপা থানা পুলিশ।

ঘটনার কিছু পরেই পুরো ঘটনাটি নির্যাতনকারীরা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেইজবুকেও ছেড়ে দেওয়া হয়। এ ঘটনায় গলাচিপা থানায় একটি মামলা হলে ফেইজবুক থেকে ভিডিওটি মুুছে দেয় দুর্বত্তরা। এদিকে মামলা করেও নিরাপত্তাহীনতায় ভূগছে শিশুটির পরিবার।

মামলার বিবরণ ও পুলিশ সূত্রে জানাগেছে, গলাচিপা উপজেলার ডাকুয়া ইউনিয়নের ৯ নম্বর ওয়ার্ডের ফুলখালী গ্রামের জুলেল মৃধার মোবাইল চুরির অভিযোগে শুক্রবার সকালে ডাকুয়ার ৮ নম্বর ওয়ার্ডের কৃষ্ণপুর গ্রামের মকবুল গাজীল ছেলে রাকিব গাজী (১৪) কে ঘর থেকে ডেকে নেয়। এর পর ফুলখালী রেজাউল মৃধার বাড়ির সামনে পাকা রাস্তার দক্ষিণ পাশে রাকিবকে গরু বাঁধার রশি দিয়ে আম গাছের সাথে হাত পা বেধে নির্যাতন করে ফুলখালী গ্রামের জুয়েল মৃধা, রাকিব মৃধা, সোহেল মৃধা, এমাদুল মৃধা ও জাকির মৃধাসহ অজ্ঞাত আরো দুই তিনজন। রাকিবের ওপর মধ্যযুগীয় কায়দায় তিন ঘণ্টা ধরে অকথ্য নির্যাতন চালায়। নির্যাতনের এক পর্যায় রাকিকের বাবা মকুল গাজীকেও ঘর থেকে টেনে হিচড়ে নামিয়ে আনে। তাকে গলায় গামছা পেচিয়ে ছেলের পাশে আনে এবং ছেলের সামনে তাকেও অকথ্য নির্যাতন করে। এতে মকবুল গাজী অজ্ঞান হয়ে পড়লে তাকে বাচাঁতে স্ত্রী মোর্শেদা বেগম ঘটনাস্থলে ছুটে যান এবং স্বামীকে (মকবুল গাজী)কে উদ্ধার করতে চ্্াইলে তাকেও নির্যাতন করা হয়। এসব ঘটনা দুর্বৃত্তরা মোবাইলে ভিডিও করে। এ ব্যাপারে ৮ নম্বর ইউপি সদস্য মো. আরিফ মিয়া ও ৯ নম্বর ইউপি সদস্য মো. রাকিব মিয়া এ ঘটনার প্রতিবাদ করলে তাদেরকেও অপমান করা হয়।

উক্ত বিষয়ে শিশুটির বাবা মো. মকবুল গাজী জানান, আমার ছেলে মোবাইল চুরি করেছিল কিন্তু আমি জিজ্ঞেস করার পরে ছেলে স্বীকার করে এবং উদ্ধার করে ফেরত দিয়ে দেই। তারপরও তারা তাকেসহ আমাকে অত্যাচার করেছে। এর সুষ্ঠ বিচার চাই।

এ প্রসঙ্গে গলাচিপা থানার অফিসার ইনচার্জ এম আর শওকত আনোয়ার ইসলাম বলেন, “ এ ঘটনায় নির্যাতনের শিকার শিশুটির মা মোর্শেদা বেগম বাদী হয়ে জুয়েল মৃধা, রাকিব মৃধা ও সোহেল মৃধাকে প্রধান আসামী করে ৫জনের নাম উল্লেখ করে অজ্ঞাত তিনজনের নামে একটি মামলা দায়ের করেছে। এর মধ্যে অভিযুক্ত সোহেল মৃধাকে গ্রেফতার করা হয়েছে। অন্যদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।’


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো সংবাদ