গলাচিপায় বন কর্মকর্তার মিথ্যা ও হয়রানি মূলক মামলার প্রতিবাদে মানববন্ধন !


গলাচিপায় বন কর্মকর্তার মিথ্যা ও হয়রানি মূলক মামলার প্রতিবাদে মানববন্ধন !


পটুয়াখালীর গলাচিপা উপজেলার রতনদী তালতলী ইউনিয়নে বনকর্মকর্তার দ্বায়ের কৃত মিথ্যে ও হয়রানি মুলক মামলার প্রতিবাদে ৮ ফেব্রুয়ারী ক্রবার বেলা ১২টার সময় পাতাবুনিয়া এলাকায় স্থানীয় জনসাধারণ মানববন্ধন করেন।

স্থানীয় জনসাধারণের কাছ থেকে জানা যায়, গলাচিপা উপজেলার ফরেস্ট রেঞ্জার ভারপ্রাপ্ত অফিসার মোঃ জাহাঙ্গীর দীর্ঘদিন যাবৎ স্থানীয় ইউপি সদস্য আলমগীরকে ব্যবহার করে সরকারি বন উজার করে আসছে বহুদিন যাবৎ। শুধু তাই নয়, প্রকাশ্যে দিবালোকে উলানিয়া থেকে বদনাতলীর নদীর দুইপারের সরকারি গাছ বিক্রিকরে হাতিয়ে নিয়েছে লক্ষ লক্ষ টাকা ও সরকারি সম্পদ।

তার এ কুকর্ম ও সরকারি সম্পদ রক্ষার দাবিতে বাধাঁ দেয় স্থানীয় মোঃ সেকান্দর ফরাজীর ছেলে মোঃ হালেম ফরাজী, মোঃ খালেক ফকিরের ছেলে আঃ রশিদ ফকির ও আঃ গনির হাওলাদের ছেলে মোঃ মোশারেফ সহ স্থানীয় জনসাধারন। যার কারণে তার অপকর্মে বাধাঁর শিকার এ সকল নিরীহ খেটে খাওয়া মানুষ।

স্থানীয় চৌকিদার মোঃ আলমাস বলেন, অভিযুক্তরা কোন গাছ কাটেনাই আমার বিশ্বাস , এ সব সরযন্ত্র। অন্যাদিকে ইউপি সদস্যের বোন জানান, আমার ভাই অন্যায় ভাবে রেঞ্জ কর্মকর্তার সাথে হাত মিলিয়ে এসব সাজানো মামলা দিয়েছে।

এবিষয়ে স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান মোঃ গোলাম মোস্তফা খান জানান, মামলার বিবাদীগন আমার এলাকার ভোটার ও নাগরিক, আমার জানামতে তারা এধরনের কাজ করতে পারেনা। আর আমি চেয়ারম্যান হলেও, গলাচিপা রেঞ্জ অফিসার জাহাঙ্গীর কোন কিছুই জানায় না, শুধু শুনি গাছ কাটে আর বিক্রি করে। তবে তাদের বিরুদ্ধে আনিত অভিযোগের বিষয়ে সঠিক তদন্তের মাধ্যমে আসল রহস্যের উন্মোচন হবে আশা করি।

উল্লেখ্য গত ২০১৯ইং ১ আগষ্টে বরিশাল বিভাগীয় দৈনিক সময়ের বার্তা পত্রিকায় “গলাচিপায় নদীর দুই পারে বিলুপ্তির পথে সরকারি গাছ” শিরোনামে সংবাদ পত্রেও খবর ছাপা হয়েছিলো। তার’ই রেশধরে প্রতিহিংসা ও হয়রানির উদ্দেশ্যে মামলা করেছে বলে মানববন্ধন কারীরা প্রতিবেককে জানান।

এ বিষয়ে ইউপি সদস্য আল রেঞ্জ কর্মকর্তা, গলাচিপা মোঃ জাহাঙ্গীর হোসেনের মুঠোফোনে বহুবার জানতে চাইলেও তাকে পাওয়া যায়নি।

পটুয়াখালীর বন কর্মকর্তা মোঃ মনিরুল ইসলামের কাছে জানতে চাইলে বিষয়টি ক্ষতিয়ে দেখবেন বলে আশ্বাস দেন।

উল্লেখ্য গত ২৯ /৭/ ২০১৮ ইং তারিখে উপকূলীয় বন বিভাগ, পটুয়াখালী ডিভিশন এ ১৯২৭ই সনের বন আইনে যথা ২০০০ইংসন সংশোধনী আইনের ৩৩(১) এর (ছ) ধারা মোতাবেক গলাচিপা উপজেলা রেঞ্জকর্মকর্তা মোঃ জাহাঙ্গীর একটি সাজানো মামলা দ্বায়ের করেন।


jewel৭১বিডি২৪ডটকম/মু. জিল্লুর রহমান জুয়েল

Recommended For You

About the Author: HumayrA

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *