গলাচিপায় যথাযোগ্য মর্যাদায় মহান বিজয় দিবস উদযাপিত

:: ৭১বিডি২৪ডটকম :: জসিম উদ্দিন ::


গলাচিপায় যথাযোগ্য মর্যাদায় মহান বিজয় দিবস উদযাপিত


:: গলাচিপা(পটুয়াখালী) :: পটুয়াখালীর গলাচিপা উপজেলায় ১৬ ডিসেম্বর ২০১৮ মহান এ বিজয় দিবসে, ৭১ এর সেই মুক্তিযুদ্ধে নারকীয় হত্যাযোগ্য করেছিল পাকিস্তানি হানাদার বাহিনী সেটাকে উপেক্ষা করে এ দেশের বীর মুক্তিযোদ্ধারা অদম্য সাহসিকতার সাথে যুদ্ধ করে আজ এই দিনে দেশকে স্বাধীনতার পতাকার বিজয় অর্জন করেন। সেই দিনে যার অবদানে এ দেশ স্বাধীন হয়েছিল মহান এ দিবসে গভীর শ্রদ্ধার সাথে স্মরন করে হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ বাঙালী জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও স্বাধীনতা যুদ্ধের বীর সহীদ মুক্তিযোদ্ধাদের। অনন্য গৌরবে ভাস্বর মহান মুক্তিযুদ্ধে জাতির বিজয়ের এ দিনকে যথাযোগ্য মর্যাদায় উদযাপন উপলক্ষে উপজেলা প্রশাসন ও উপজেলা আওয়ামী লীগ সহ বিভিন্ন রাজনৈতিক সংগঠন, পেশাজীবি সংগঠন ও বিভিন্ন সামাজিক সংগঠন যথেষ্ট গুরুত্ব সহকারে দিন ব্যাপি কর্মসূচী পালন করে।

রবিবার সকালে উপজেলা প্রশাসনের উদ্যোগে সকাল ৫ টায় গলাচিপা থানা প্রাঙ্গনে ৩১ বার তোপধ্বনির মাধ্যমে দিবসের সূচনা।

সূর্যোদয়ের সাথে সাথে উপজেলা নির্বাহী অফিসার শাহ্ মো.রফিকুল ইসলাম পতাকা উত্তোলনের সুভ সূচনা করেন।

বিভিন্ন সরকারী, বে- সরকারী অফিস, শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ও বাসস্হানে জাতীয় পতাকা উত্তোলন করা হয়।

সকাল সাড়ে ৮ টায় উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান মো.সামছুজ্জান লিকন এর নেতৃত্বে মুক্তিযুদ্ধের স্মৃতিসৌধে পুস্পস্তবক অর্পন করেন।

এর পরে বিভিন্ন রাজনৈতিক দল, সামাজিক সংগঠন ও পেশাজিবী সংগঠনের নেতা কর্মীরা পুস্পস্তবক অর্পন করেন।

সকাল ৯ টায় উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান সামছুজ্জামান লিকন তুরস্ক ফ্রেন্ডশীপ স্কুল মাঠে আনুষ্ঠানিক পতাকা উত্তোলন এবং অংশ গ্রহনকারী দলসমুহের কুচকাওয়াজ ও শরীর চর্চা প্রদর্শনে অংশগ্রহন করেন বাংলাদেশ পুলিশ, আনসার, ভিডিপি, রোভার স্কাউট, বয়স্কাউট, গার্লসাইড, কাবস্কাউট ও বিভিন্ন স্কুল, কলেজ ও মাদ্রাসার ছাত্র- ছাত্রী বৃন্দ।

সকাল ১০ টায় মুক্তিযোদ্ধাদের পরিবারের সদস্যদের সংবর্ধনা দেয়া হয়। সোয়া ১১ টায় বীর মুক্তিযোদ্ধাদের জন্য ক্রীড়া অনুষ্ঠান হয় ” আপন বেলুন বাচাই”। সাড়ে ১১টায় ক্রীড়া অনুষ্ঠান শিশুদের ৫০ মিঃ দৌড়(বালক-বালিকা), কিশোরদের ১০০ মিঃ দৌড়( বালক- বালিকা), বালিকাদের ভারসাম্য দৌড়, যুবকদের ১০০ মিঃ দৌড় ও যেমন খুশি তেমন সাজ অনুষ্ঠিত হয়। এ ছাড়া ১১.৪৫ ও ১২টায় চিকনিকান্দি (সূতাবাড়িয়া) ও পানপট্টিতে মুক্তিযুদ্ধের স্মৃতিসৌধে পুস্পস্তবক অর্পন করা হয়। বাদ যোহর প্রতিটি মসজিদে দোয়া ও মন্দির এবং বিভিন্ন উপসানালয়ে প্রার্থনা। বিকাল ২ টায় হাসপাতাল ও এতিম খানায় উন্নত খাবার পরিবেশন করা হয়। বিকাল ৩ টায় ফুটবল প্রতিযোগিতা ( উপজেলা পরিষদ একাদশ বনাম মুক্তিযোদ্ধা কমান্ড একাদশ।

সন্ধ্যা ৬ টায় ” সুখী- সর্মৃদ্ধ বাংলাদেশ গঠনের লক্ষ্যে ডিজিটাল প্রযুক্তির সার্বজনীন ব্যবহার, মুক্তিযুদ্ধ শীর্ষক আলোচনা সভা, সন্ত্রাসবাদ, জঙ্গিবাদ ও সাম্প্রদায়িকতা বিরোধী আলোচনা এবং মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান করা হয়। এ ছাড়া ইউনিয়ন পর্যায়ের বিভিন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে বিজয় দিবসের কর্মসূচী পালন করা হয়।

Recommended For You

About the Author: HumayrA

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *