আমতলিতে দুইটি ইউনিয়নের পানি নিষ্কাশনের জন্য একটি মাত্র স্লুইজ গেট, বিপাকে কৃষকরা

মো:নজরুল ইসলাম,আমতলী(বরগুনা): 

বরগুনা জেলার আমতলী উপজেলার আঠারগাছিয়া ইউনিয়নের ১, ২ ,৩ ও ৪ নং ওয়ার্ড কুকুয়া ইউনিয়নের তিন থেকে ৪ টা ওয়ার্ড এই দুই ইউনিয়নের পানি নিষ্কাষন ও উত্তলনের জন্য একটা মাত্র স্লুইজ গেট। চাউলা বাজার স্লু“ইজ গেট। সময় মত পানি নিষ্কাষন করতে না পারায় বিপাকে কৃষকরা।

জানা যায়, আঠারগাছিয়া ইউনিয়ন ও কুকুয়া ইউনিয়ন এই দুটি ইউনিয়নের কৃষকের পানি উত্তলন ও নিষ্কাষনের একটা মাত্র স্লুইজ গেট থাকায় শুকনো মৌসুমেও রবি শষ্য চাষাবাদে ব্যপক ক্ষতি গ্রস্থ হচ্ছে কৃষকরা।

এখন আবার আমন ধানের চারা রোপনের শেষ মৌসুম কিন্তুু সময় মত পানি নিষ্কষন করতে না পারায় এখন ও আমন ধানের চারা রোপন করা শুরু করতে পারিনি এই দুই ইউনিয়নের কৃষকরা।

এ বিষয়ে সুশীল সমাজের পক্ষথেকে স্থানীয় বাসিন্দা এ্যাডভোকেট মো: শাহ্ আলম খান সাংবাদিকদের জানিয়েছেন, এই চাউলা বাজার স্লুইজ গেটের দুইটা মাত্র দরজা। দুইটি দরজা দিয়ে চাহিদার চেয়ে কম পানি নিষ্কাশন হয়। তাই সময় মতো পানি নিষ্কাষন ও উত্তালন করতে না পারায় ইতি পূর্বে কৃষকদের অনেক ক্ষতি হতে দেখা গেছে। তবে কর্তৃপক্ষ যদি চাউলা বাজারের স্লুইজ গেট টাকে দুই দরজা থেকে চার দরজায় উন্নতি করেন তবে এই কৃষকের সমস্যা একটু হলেও কমবে।

এ বিষয়ে স্থানীয় শতাধিক কৃষকের প্রাণের দাবি কর্তৃপক্ষ যাহাতে দুই দরজা বিশিষ্ট চাউলা বাজার স্লুইজ গেটকে চার দরজায় উন্নতি করে দিয়ে গ্রামের সাধারন কৃষকদের পরিবার পরিজন নিয়ে দু-বেলা দু-মুঠো ডাল ভাত খেয়ে বেঁচে থাকতে পারে।

এ বিষয়ে স্থানীয় ৩ নং ওয়ার্ডের ইউ/পি সদস্য মো: জালাল উদ্দিন মাস্টারও একই কথা জানিয়েছেন সাংবাদিকদের।

এ বিষয়ে আঠারগাছিয়া ইউনিয়ন পরিষদ এর চেয়ারম্যান মো: হারুন-অর রশিদ জানান যত তাড়াতাড়ি সম্ভব সমস্যার যাতে সমাধান হয় সেই চেষ্টা করব।

এ বিষয় আমতলী উপজেলা কৃষী কর্মকর্তা এস.এম বদিউল আলম জানিয়েছেন, আঠারগাছিয়া ও কুকুয়া ইউনিয়নের কৃষকের সংকটের বিষয়ে ইতি পূর্বে আমি কয়েক বার পানি উন্নয়ন বোর্ডে জানিয়েছি খুব শিঘ্রই ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

এ বিষয়ে বরগুনা পানি উন্নয়ন বোর্ড কর্মকর্তা মো: মশিউর রহমান জানিয়েছেন, যত তাড়াতাড়ি সম্ভব কৃষকের সমস্যা দূর করা যায় সে চেষ্টা অব্যহত থাকবে।

Recommended For You

About the Author: HumayrA

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *