অদৃশ্যের চাদরে ঢেকে যাচ্ছে বিয়ের প্রলোভনে শিকার শিরিনা ধর্ষন মামলা ! ৮ মাস পারহলেও দেয়া হয়নি চার্জশিট !!

৭১বিডি২৪ডটকম | মু. জিল্লুর রহমান জুয়েল;


রাঙ্গাবালী


পটুয়াখালী : পটুয়াখালীর রাঙ্গাবালী উপজেলার চরগংঙ্গা গ্রামের হত দরিদ্র জেলে স্বপন মল্লিকের মেয়ে শিরিনা কে ভালোবাসার ফাদ পেতে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে ধর্ষনের পর অন্তঃসত্ত্বার অভিযোগের মামলা অদৃশ্য চাদরে ঢেকে যাচ্ছে বলে ভিকটিম পরিবারের অভিযোগ। সরেজমিন ও মামলা সূত্রে জানা যায়, ভিকটিম শিরিনা আক্তার জীবীকার জন্য বাবার সাথে ঢাকার একটি কোম্পানির সেল্স ম্যানের কাজ করতো বলে ভিকটিম শিরিনার ও তার পরিবার সাংবাদিকদের জানায়, শিরিনা আরো জানায়, ঢাকার কাজ শেষ করে বাবার সাথে বাড়ি চলে আসলে, এক পর্যায় একই থানার কাজিরহাওলা গ্রামের মৃত, দেলোয়ার হাওলাদারের ছেলে জীবন(১৯) এর সাথে পরিচয় করিয়ে দেয়, জীবনের বন্ধু একই গ্রামের সুলতান হাওলাদারের ছেলে ইয়াছিন হাওলাদার (১৯)। ঘটনা এখানেই শেষ নয়, শিরিনা ও জীবনের পরিচয়ের পর থেকে মন দেয়া-নেয়া থেকে বিয়েয় প্রলোভন এবং পরে কৌসলে ৫ জানুয়ারি ২০১৬ইং রোজ মঙ্গলবার প্রতারক জীবনের বন্ধু ইয়াসিনের সহযোগীতায় শিরিনার সাথে শারীরিক যৌন সম্পর্কে জরিয়ে পরলে ধর্ষনের করার ভিডিও চিত্র ধারন করে ইন্টারনেটে ছরিয়ে দেয় প্রতারক জীবন ও সহযোগী ইয়াসিন । হত দরিদ্র জেলের কন্যা শিরিনা এক পর্যায় প্রেমিক জীবনের অপকৌশলে জালে জরিয়ে ভবিষ্যতের কথা ভেবে গর্ভবতির কথা প্রতারক জীবনের কাছে জানালে, নারীলোভী প্রতারক জীবন তা অস্বীকার করলে কালবৈশাখীর ঝর নেমে আসে শিরিনার জীবনে। ঘটনা জনসাধারণের মাঝে জানা জানি হলে, প্রভাবশালীদের আশ্রয় নেয় প্রতারক জীবন। ভিকটিম পরিবার প্রতিবাদককে জানায়, বহু সালিশি বিচার করে কোন বিচার না পেয়ে ৪ মার্চ ২০১৬ইং নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইন ২০০০ সংশোধনী ২০০৩ এর ৯(১)/৩০ ধার মৃতঃ দেলোয়ার হাওলাদারের ছেলে জীবনকে ১ নম্বর এবং কুকর্মের সহযোগী ২ নম্বর সুলতান হাওলাদারের ছেলে ইয়াসিন হাওলাদারের বিরুদ্ধে আসামী করে রাঙ্গাবালী থানায় মামলা দায়ের করেন। এ দিকে মামলা করার পরথেকে প্রতিনিয়ত বিভিন্ন হুমকি ও আতংকের মাঝে দিন-রাত পর করছে পিতৃ পরিচয় হীন নিশপাপ শিরিনার গর্ভের জন্মগত শিশু ও হতভাগী শিরিনা। এ বিষয়ে আসামী র বাড়ি গেলে সাংবাদিক পরিচয় জেনে অনেক্ষন অপেক্ষ করার পরেও সামনে এসে কথা বলতে রাজি হয়নী আসামীর পরিবার। হতভাগী শিরিনার পরিবার কান্না জরিত কন্ঠে বলেন, পুলিশ প্রধান আসামী কে প্রকাশ্য ঘোড়া ঘুড়ি করলেও গ্রেফতার করছেনা বলে সাংবাদিকদের জানায়। এ ব্যপারে মামলার উপপরিদর্শক এসআই দ্বিপাওন এর সাথে মুঠো ফোনে জানতে চাইলে তিনি বলে আসামী প্রকাশ্যে ঘুরছে কথাটি সত্য নয়, তবে আসল সত্য উদঘাটন ককরার জন্য ডিএনএ পরিক্ষা প্রয়োজন এবং আগামী ১ সপ্তাহের মধ্যে চার্জশিট দাখিল করবেন বলে প্রতিবেদককে জানান। উল্যেক্ষ গত অক্টোবর ২০১৬ইং শিরিনার কোলজুড়ে একটি কন্যা সন্তান জন্ম দেয়, যার নাম রাখা হয় মিম, এবং সরকারী টিকা দান কেন্দ্রের আইডি কার্ডে পিতার নাম দেয়া হয় মু. জীবন হাওলাদার।

Recommended For You

About the Author: HumayrA

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *